Press "Enter" to skip to content

বিজেপির ভাগ্য ভালো যে আমি শান্ত হয়ে বসে আছি, নাহলে ১ সেকেন্ডে BJP মুখ্যালয় দখল করে নেব: মমতা ব্যানার্জী।

পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল কংগ্রেস(TMC) ও বিজেপি(BJP) এর মধ্যে দ্বন্দ এখন চরম পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। গতকাল কলকাতার অমিত শাহের রোড শো ছিল। রোড শো খুবই দুর্দান্ত ছিল, লক্ষ লক্ষ ভিড় কলকাতার রাস্তায় উপস্থিত ছিল।মোদী মোদী, জয় শ্রী রাম শ্লোগানে মুখরিত হচ্ছিল। কিন্তু কিছুক্ষণ পরেই TMC এর গুন্ডারা রোড শো এর উপর আক্রমণ করে।অমিত শাহের সুরক্ষাকে মাথায় রেখে শেষমেষ রোড শো বন্ধ করা হয়। অমিত শাহের গাড়িতেও হামলা করা হয়। CRPF না থাকলেন অমিত শাহের বেঁচে ফিরে আসাই কঠিন হয়ে পড়তো।

আর এখন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীর বিবৃতি সামনে এসেছে। মমতা ব্যানার্জী বলেছেন, বিজেপির ভাগ্য ভালো যে আমি শান্ত বসে আছি নাহলে ১ সেকেন্ডের মধ্যে BJP এর মুখ্যালয়ে কবজা করে নিতে পারি। মমতা ব্যানার্জী বলেন, অমিত শাহ-মোদী কোনো ভগবান নয় যে আমি তদের বিরুদ্ধে কথা বলতে পারবো না। এটা BJP দের ভাগ্য ভালো যে আমি শান্ত হয়ে বসে আছি নাহলে ১ সেকেন্ডে বিজেপির মুখ্যালয় ও তদের ঘরে কবজা করে নিতে পারি।

মমতা ব্যানার্জী বলেছেন, বিজেপি বাংলার সভ্যতাকে ধ্বংস করে দেওয়ার ষড়যন্ত্র চালাচ্ছে এবং বহিরাগত সংস্কৃতি আমদানি করার চেষ্টা করছে। উনি বলেন,রবীন্দ্রনাথ ভুলিয়ে দেওয়া, নজরুল ভুলিয়ে দেওয়া, স্বামী বিবেকানন্দ ভুলিয়ে দেওয়া এটাই হলো বিজেপির গেম প্ল্যান। দুটো গুন্ডা আছে একটা মোদী গুন্ডা একটা অমিত শাহ গুন্ডা। বিদ্যাসাগরের গায়ে হাত দিলে গুন্ডা বলবো না তো কি বলবো, শুধু গুন্ডা নয় গুন্ডা,সন্দা, পণ্ডা সব বলবো। অমিত শাহ ও বিজেপিকে আক্রমন করে এমনটাই বলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী।

তবে এটা প্রথমবার নয় যে মমতা ব্যানার্জী (mamata banerjee) এমনভাবে নরেন্দ্র মোদীর, BJP এর উপর আক্রমন করেছেন। এর আগে মমতা ব্যানার্জী মোদীকে কাঁকর মেশানো মিষ্টি খাওয়ানোর কথা বলেছিলেন। এরপর মমতা ব্যানার্জী প্রধানমন্ত্রী মোদীকে থাপ্পড় মারার কথা বলে বিতর্কে জড়িয়ে ছিলেন। আর এখন উনি ১ সেকেন্ডে বিজেপি মুখ্যালয় দখল করার কথা বলেছেন। জানিয়ে দি, পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতি এখন উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। একে অপরের উপর লাগাতার আক্রমন চলছে। অন্যদিকে ডায়মন্ড হারবারের কিছু এলাকা থেকে ভোট প্রদানের ঠিক আগে হিন্দু বিতাড়ন শুরু হয়েছে। হিন্দুদের বাড়ি ঘর, দোকান পাট জ্বালিয়ে তাদের তাড়িয়ে দেওয়ার খবর সামনে এসেছে। যদিও এই ইস্যুতে সমস্থ নেতারা মুখে কুলুপ এঁটেছে।