Press "Enter" to skip to content

প্রধানমন্ত্রী মোদীর সাথে দেখা করতে পৌঁছালেন অজয় ও অক্ষয় কুমার! বৈঠকে এই বিশেষ দাবি রাখলেন এই অভিনেতারা।

নরেন্দ্র মোদীর জনপ্রিয়তা এখন এতটাই যে দেশের সমস্থ বর্গের মানুষ প্রধানমন্ত্রীর সাথে নিজেকে জুড়তে চাইছেন। বর্তমানে বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় তথা নরেন্দ্র মোদীর শ্লোগান হল “সবকা সাথে সবকা বিকাশ।” আর এই জন্যই উনি সবাই কে সাথে করে নিয়ে চলতে ভালোবাসেন। এমনকি মোদীজি দেশ চালনার পথেও সবাই কে সাথে করে নিয়ে চলতে চান। কিন্তু মোদীজির এই উদারতার সবচেয়ে ভালো নিদর্শন আমরা তখন পেয়ে থাকি যখন উনি দেশের সমস্ত বিরোধীদের উদ্দেশ্যে বার্তা দেন যে আসুন সকলে মিলেমিশে দেশের উন্নয়নে সামিল হয়।

আর দেশের প্রধানমন্ত্রীর এমন সৎ মানসীকতা দেখার পর সত্যি ভারতীয় হিসাবে আমরা খুবই ভাগ্যবান এবং গর্বিত। কারণ এমন প্রধানমন্ত্রী পাওয়া যেকোনো দেশের কাছে ভাগ্যের ব্যাপার।আর এই কিছুদিন আগে দেশের সিনেমা জগতের তারকাদের সাথে হওয়া প্রধানমন্ত্রীর এক বৈঠকে আমরা দেখতে পায় মোদীজির এক সম্পূর্ণ আলাদা মূর্তি। আসুন সেই ব্যাপারে বিস্তারিত আলোচনা করা যাক। আপনাদের জানিয়ে রাখি কিছুদিন আগে দেশের সিনেমা জগতের বেশ কয়েকজন প্রভাবশালী ব্যাক্তি বলিউডের কিছু অসুবিধাজনিত কারণ নিয়ে মোদীজির সাথে বৈঠক করতে আসেন। সেই প্রভাবশালী ব্যাক্তিদের তালিকায় ছিলেন সিংগাম সিনেমাখ্যাত অজয় দেবগন, খ্যাতনামা অভিনেতা রাকেশ রোশন, পরিচালক করণ জোহর, এবং এই মুহূর্তে বলিউডের সবচেয়ে সফল অভিনেতা সহ সেন্সর বোর্ডের সদস্যরা।

এনারা সকলে মোদীজির সাথে বিভিন্ন বিষয়ে কথাবার্তা বলেন এবং সেই সাথে তারা একটা নির্দিষ্ট পরিকল্পনা মোদীজি কে দেখান। সেই পরিকল্পনা ছিল কেমন করে বিশ্বের দরবারে দেশ কে একটা আলাদা মাত্রায় তুলে ধরবে বলিউড। সেই সাথে বলিউডের বেশকিছু অসুবিধার কথা তারা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সামনে বলেন। তাদের সমস্ত কথাবার্তা, দাবিদবা শোনার পর মোদীজি তাদের কে বলেন যে, ভারতের সিনেমা জগৎ এই মুহূর্তে যে পুরো বিশ্বের কাছে এক উদাহরণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

সবাই এখন ভারতীয় সিনেমার ভক্ত হয়ে গিয়েছে। দেশে- বিদেশে চরম চর্চা হচ্ছে ভারতীয় সিনেমা জগৎ কে নিয়ে। এর পাশাপাশি মোদীজি বলেন যে, দেশের সিনেমা জগৎ এবং মিডিয়ার পাশে সবসময় কেন্দ্র সরকার আছে। তাদের যখন যা দরকার এবং তাদের উন্নয়নে পুরোপুরি ভাবে সাহায্য করবে মোদী সরকার।
#অগ্নিপুত্র

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.