Press "Enter" to skip to content

এবার দিল্লীর মধ্যেও মিনি পাকিস্থান! ‘বাড়ি বিক্রি’ লিখে পলায়ন হিন্দুরা।

ধর্মনিরপেক্ষতা- এই শব্দ ওতপ্রোত ভাবে আমাদের দেশের ও সমাজের সাথে জুড়ে দিয়ে গেছে কংগ্রেস। আর এই শব্দ এখন সমাজের উপর ভারী পড়ছে বলেই মনে করছেন অনেকে। কারণ এবার অন্যান্য বড়ো শহরের মতো হয়তো দিল্লীর কিছু স্থানে তৈরি হয়েছে ের অনুরূপ পরিস্থিতি। নীচে যে সংবাদ পত্রের ছবিটি যোগ করা হয়েছে এই সংবাদটি ভারতের রাজধানী শহর দিল্লির। না কাশ্মীর, পাকিস্থান বা বাংলাদেশের নয়, দিল্লির ব্রম্মহপুরীর থেকে প্রাপ্ত সংবাদ ছাপা হয়েছে। যেখানে হিন্দুরা নিজের ঘর বাড়ির দেয়ালে ‘বিক্রি আছে’ বলে লিখে পলায়ন করতে শুরু করেছে। করার কোনোকিছু নেই। কারণ বউ মেয়ে বাড়ির বাইরে বেরোনো মুশকিল হলে, মন্দিরে আপত্তিজনক পদার্থ রেখে দিলে, বেছে বেছে বাড়িতে কখনো নোংরা আবর্জনা কখনো অন্যকিছু ফেলে জীবনযাত্রাকে নরকে পরিণত করলে কি বা করার থাকবে হিন্দুদের।

আপনাদের জানিয়ে দি দিল্লিতে দেশের মেইন স্ট্রিম মিডিয়া সবথেকে এক্টিভ কিন্তু এই বিষয়ে সমস্থ কিছু জানার পরেও মুখে লাগাম লাগিয়েছে দালাল মিডিয়া। বাকি রাজ্য বাদ দিন দেশের রাজধানীতেই কিছু কিছু জায়গায় মিনি পাকিস্থানের মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। এমনকি পুলিশ পর্যন্ত এইসব জায়গায় যেতে ভয়ভীতি হয়। সুলতানপুরীর ৩০ বছর বয়স্ক সাদ্দাম আনসারী ১৪ বছর বয়সী হিন্দু বালিকাকে ১৩ আগস্ট ২০১৮ তে অপহরণ করে নিয়ে যায়।

এখনো পুলিশ না পেরেছে বালিকাকে খুঁজে বের করতে না পেরেছে সাদ্দাম আনসারীর কিছু করতে। এখন হিন্দু পলায়নের যে খবর দিল্লির ব্রহ্মহপুরী থেকে আসছে এটা পাঞ্জাব কেশরী ও সুদর্শন নিউজ ছাড়া কোনো মিডিয়া দেখায়নি। দেশে গরু চুরি করতে গিয়ে কোনো আব্দুল পিটুনি খেলে মিডিয়া মব লিনচিং বলে স্পেশাল শো করে , ২৪ ঘন্টায় ৭২ টি ডিবেট করে পুরো বিশ্বকে জানিয়ে দেয়।

অথচ এখন কারোর মুখে টু শব্দ শুনতে পাওয়া যাবে না। এখন ও বিষয়ে না কোনো নেতা , না কোনো বুদ্ধিজীবী না কোনো দালাল মিডিয়া মুখ খুলবে। আজ দিল্লীর ব্রহ্মহপুরীর হিদুদের অবস্থা হয় ধৰ্ম পরিবর্তন করা নাহয় পলায়ন করো। কারণ স্পষ্ট কট্টরপন্থীরা কখনো সড়ক আটকে কখনো গুন্ডামি করে কখনো আস্থায় আঘাত করে লাগাতার আক্রমণ করতে শুরু করেছে।