Press "Enter" to skip to content

বঙ্গবিজেপিতে ঢুকে রয়েছে মীরজাফর? শীর্ষ নেতৃত্ব কড়া পদক্ষেপ নিতে চলেছে এই বিশ্বাসঘাতকের উপর!

বঙ্গবিজেপির দলের ভিতরেই রয়েছে মিরজাফর! তাদের দলের ভিতর যে মিরজাফর রয়েছে সেটা এবার মেনে নিচ্ছেন বিজেপির শীর্ষ নেতারা এমনটাই দাবি কিছু নিউজ পোর্টালের। সামনেই লোকসভা ভোট তাই চাইছে যে ভোটের আগেই সেই ঘরশত্রু মিরজাফরকে খুঁজে বের করতে। কারন যদি মিরজাফর কে খুঁজে না পাওয়া যায় তাহলে আর রক্ষা নেই। দলের ভিতর যদি মিরজাফর থেকে যায় তাহলে বাংলা থেকে তৃনমূল কে হারানো মুশকিল হয়ে যাবে। তাই এবার খোদ অমিত শাহ নিজেই আসরে নামছেন সেই মিরজাফরের খোঁজে। শীর্ষ নেতৃত্ব মনে করছে যে, তাদের দলের ভিতরেই এমন কেউ রয়েছে যে তাদের সব খবর পৌঁছে দিচ্ছে তৃনমূলের কাছে। তার জন্যই অন্য কোথাও ফাঁস হয়ে যাচ্ছে বিজেপির হাঁড়ির খবর।

বিজেপির সমস্তরকম রণকৌশল জেনে যাচ্ছে রাজ্যের শাসক দল তার ফলে দলের সাংগঠনিক ভিত শক্ত হওয়ার বদলে দিনের পর দিন আরও দুর্বল হয়ে পড়ছে। তৃণমূল জেনে যাচ্ছে সমস্তরকম তথ্য যার জন্য বিজেপির কোনো লাভ হচ্ছে বা উলটে অস্ত্র পেয়ে যাচ্ছে তৃণমূল। এইরকম পরিস্থিতিতে বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্ব মনে করছেন যে, তৃণমূলের সাথে পরোক্ষ ভাবে যোগাযোগ রয়েছে বিজেপির কিছু নেতানেত্রীর। তারাই সমস্ত তথ্য ফাঁস দিয়ে দিচ্ছেন তৃনমূল কংগ্রেস কে। তারা দলের যেসমস্ত দুর্বলতা গুলি রয়েছে সেই সব তথ্য পৌঁছে দিচ্ছে তৃনমূলের কাছে।

আবার বিজেপির স্পেশাল কিছু পরিকল্পনাও তারা ফাঁস করে দিচ্ছেন। ফলে কার্যকর হচ্ছে না বিজেপির রণকৌশল। তাই ভোটের আগেই সেইসব মিরজাফরদের খুঁজে বের করতে চাইছেন অমিত শাহ জি। লোকসভা ভোটের আগে মোদীজি ও অমিত জি যেমন ঘনঘন রাজ্যে আসবেন জনসভা করবেন। তেমননি রাজ্যের উচ্চপর্যায়ভুক্ত বিভিন্ন নেতাদের কেউ তিনি দিল্লিতে ডেকে নিচ্ছেন তাদেরকে পরামর্শ দেওয়া জন্য। তবে অনেকের ধারণা বিজেপির উপর মিথ্যা দুর্নাম রোটানো জন্য এইসব বলা হচ্ছে।

রাজ্যের বিজেপির শীর্ষ নেতা , রাহুল সিনহা, মুকুল রায় দের তিনি আবার ডেকেছেন আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর। ভোটের প্রচার নিয়ে তিনি যেমন বেশ কিছু পরামর্শ দেবেন বঙ্গ বিজেপিকে, তেমনই তিনি রাজ্যে নিজের স্পেশাল বাহিনীও নামাবেন যাতে খুব তাড়াতাড়ি শনাক্ত করা যায় মিরজাফরদের।
#অগ্নিপুত্র