Press "Enter" to skip to content

ভিখারী পাকিস্থানের ব্যাবসার সর্বনাশ করে দিলো মোদী! লাইমস্টোন, সেনধা রপ্তানি বন্ধ হওয়ায় পাক ব্যাবসায়ীদের মধ্যে ভয়ঙ্কর প্যানিক।

ভারত পাকিস্থানের থেকে MFN মর্যাদা কেড়ে নেওয়ার পরেই পাকিস্থান থেকে আসা মালের উপর ৩০০% ট্যাক্স লাগিয়ে দিয়েছিল। এক কথায় এই সিদ্ধান্তের ফলে ভারত পাকিস্থানের ব্যাবসার উপর নিষেধাজ্ঞা লাগিয়ে দিয়েছে। ভারতের এই সিদ্ধান্তের ফল ৩ দিনের মাথায় দেখা দিতে শুরু হয়েছে। পাকিস্থানের স্টক মার্কেটে দারুণভাবে ক্ষতি দেখা যাচ্ছে। পাকিস্থানে ২ দিকের ব্যাবসা পুরোপুরি সংকটের মুখে দাঁড়িয়ে গেছে।

জানিয়ে দি, পাকিস্থান বিশ্বের একমাত্র দেশ যেখানে সেনধার খনি রয়েছে। আর এই সেনধা একমাত্র ভারত পাকিস্থানের থেকে ক্রয় করতো। ভারত ছাড়া কোনো দেশ এই সেনধা পাকিস্থানের থেকে কিনত না। পাকিস্থানের সেনধার উপর এখন মোদী সরকারের সিদ্ধান্তের প্রভাব পড়তে শুরু করে দিয়েছে।

এছাড়াও পাকিস্থানের লাইম স্টোন উৎপাদনের দিক থেকেও ১ নাম্বারে। এই লাইম স্টোনের ৪০% ভারতে আসতো যা এখন সম্পূর্নরূপে বন্ধ হয়ে গিয়েছে। ভারত ট্যাক্স এত পরিমান বাড়িয়ে দিয়েছে যে পাকিস্থানের ব্যাবসা পুরো সর্বনাশ হয়ে গিয়েছে। লাইম স্টোন ও সেনধার ব্যাবসায়ীরা পাকিস্থানের সরকারে বিরূদ্ধে বিদ্রোহ করার উপক্রম নিয়েছে। মাত্র ৩ দিনের মাথায় পাকিস্থানের ব্যাবসায়ীরা সর্বনাশের মুখোমুখি দাঁড়িয়ে পড়েছে।

এই দুই ব্যাবসা ছাড়াও তুলো সহ আরো নানা ব্যাবসায়ীদের মধ্যে পাকিস্থানে প্যানিক সৃষ্টি হয়েছে। ভারতের সাথে শত্রুতা করে এখন পাকিস্থানকে বড় সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। প্যানিক এমন অবস্থায় পৌঁছেছে যে পাকিস্থানের সরকার UN এর দরজায় পৌঁছে গেছে। মোদী পাকিস্থানের বিরুদ্ধে সৈন্য কার্যবাহী তো করবেই কিন্তু তার আগেই আর্থিক দিক থেকেও যুদ্ধ ঘোষণা করে দেওয়া হয়েছে। যার জন্য ভিখারী পাকিস্থানের মিডিয়া বিলবিল করতেও আরম্ভ করেছে।

8 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.