Press "Enter" to skip to content

মেদিনীপুরের রাস্তায় রাস্তায় মমতা ব্যানার্জীর ব্যানার লাগানোর জন্য কটাক্ষ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

কিছুদিন আগেই রাজ্যে এসেছিলেন বিজেপির রাষ্ট্রীয় সভাপতি অমিত শাহ। আর এবার পশ্চিমবঙ্গের মেদিনীপুরে এলেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীজি। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীজি তার ভাষণের শুরুতেই উপস্থিত জনগণকে শুভেচ্ছা জানান এবং তিনি এই বিশাল সংখ্যায় মানুষ তার সভায় উপস্থিত থাকার জন্য সকলকে ধন্যবাদ জানান। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এই কৃষক কল্যাণ সমাবেশ এসে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীকেও কটাক্ষ করেন।

আসলে প্রধানমন্ত্রী বলেন আমি যখন আসছিলাম তখন বিশাল জনসংযোগ আমার চোখকে এড়িয়ে যায়নি এর জন্য আমি আপনাদের কাছে কৃতজ্ঞ এবং একই সাথে আমি মমতা ব্যানার্জীর কাছেও কৃতজ্ঞ। মোদীজি বলেন, আমি মমতা দিদির কাছে এই জন্যেই কৃতজ্ঞ কারণ উনি স্বয়ং নিজের হাতজোড় করা ছবি রাস্তায় হোডিং এ লাগিয়ে আমাকে স্বাগত জানিয়েছেন। তাই আমি মমতা দিদির কাছেও কৃতজ্ঞ। আসলে মেদিনীপুরে দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীজি আসছেন এই জন্য তৃণমূল মেদিনীপুরের রাস্তা ঘাট মমতার ছবি ও ব্যানারে ভরিয়ে দেন। আসলে গনতান্ত্রিক দেশে এই রকম রাজনীতি শোভা না পেলেও রাজনৈতিক স্বার্থে ও হিংসায় মেদিনীপুরের রাস্তা ঘাট ভরিয়ে ফেলেছে তৃণমূল। আর বিষয়েই কটাক্ষ করেন মমতা ব্যানার্জীকে আক্রমন করেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

শুধু এই নয় এই সভায় মোদীজি দেশের কৃষক আয় ২০২২ এর মধ্যে কিভাবে দ্বিগুন করার পরিকল্পনা করা হয়েছে তা বলতে গিয়ে বলেন দেশের বাঁশ গাছ উৎপন্ন বাড়তে হবে কারন আমাদের উপযুক্ত শ্রমিক থাকা সত্ত্বেও বাঁশ বাইরে থেকে কিনতে হয়। এবার থেকে দেশেই বাঁশ উৎপন্ন করা হবে এবং তৃণমূল মনে করে সেই বাঁশ(যেহেতু বাঁশ এক প্রকার ঘাস) কেটে ফেলতে হবে। প্রধানমন্ত্রী মোদীজির এই কটাক্ষ যে তৃণমূলভক্তদের বেশ জোরে আঘাত করেছে তা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই।