Press "Enter" to skip to content

তুর্কীর উপর একশন শুরু মোদী সরকারের! তুর্কীকে ২.৩ বিলিয়ন ডলারের আর্থিক ঝটকা দিল মোদী সরকার।

কাশ্মির ইস্যুতে ভারতের বিরুদ্ধে এজেন্ডা চালিয়েও সক্ষম হয়নি পাকিস্তান । কাশ্মির ইস্যুতে ভারত সরকার ঐতিহাসিক সিধান্ত নিয়েছিল। যারপর থেকে পাকিস্তন বিলবিল করতে সুরু করে দেয়। কাশ্মীর ইস্যুতে তুর্কী পাকিস্তানের সমর্থনে দাঁড়িয়েছে। তুর্কী UNGA তে গিয়ে ভারত বিরোধী মন্তব্য করে। তুর্কির রাষ্ট্রপতি জাতিসঙ্ঘের সভায় কাশ্মীর ইস্যুকে ভারতের অভ্যন্তরীন বিষয় না বলে পাকিস্তানের ভাষায় ভাষণ দেন। এরপর থেকে ভারত সরকার তুর্কীকে জব্দ করার পক্রিয়া শুরু করে দিয়েছে। ভারত সরকার এখন তুরস্ককে একের পর এক বড়ো ঝটকা দিতে আরম্ভ করেছে। ভারত সরকার তুরস্কের অর্থব্যাবস্থা দুর্বল করার জন্য কাজ শুরু করেছে। কোনো দেশকে আঘাত করার সবথেকে উত্তম উপায় হলো আর্থিকভাবে আঘাত করা। আর এটাই করছে ভারত সরকার।

প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, ভারত সরকার তুর্কিকে ২.৩ বিলিয়ন ডলার আর্থিক ঝটকা দিয়েছে। তুরস্কের রাষ্ট্রপতির পাকিস্তান সমর্থক ভাষণের জন্য এবার তুর্কিকে বড়ো আর্থিক সংকটের সম্মুখীন হতে হবে। এ বছর জুন মাসে নৌসেনার ৫ টি জাহাজ তৈরির জন্য ভারত সরকার তুর্কীর এক কোম্পানির সাথে চুক্তি করেছিল। ৮ বছর ধরে এই প্রজেক্ট এর উপর কাজ চলার কথা ছিল। TAIS নামক কোম্পানির সাথে ভারত সরকার ২.৩ বিলিয়ন ডলারের মোটা চুক্তি স্বাক্ষর করেছিল।

যখন চুক্তি হয়েছিল তখন TAIS কোম্পানির CEO বলেছিলেন, আমরা ভারতে বিশ্বের তাবড় তাবড় কোম্পানির সাথে টক্কর দিয়ে এই স্থান পেয়েছি। ভারতের থেকে চুক্তি পেয়ে খুবই আনন্দ প্রকাশ করেছিলেন TAIS কোম্পানির CEO এবং তুর্কী সরকার। ভারতের থেকে টেন্ডার পেয়ে তুর্কীর প্রাইভেট সেক্টরের নাম খুব প্রসারিত হয়েছিল। কিন্তু যেহেতু তুরস্ক এখন পাকিস্তানের সমর্থনে কথা বলেছে, তাই ভারত সরকার জাহাজ নির্মাণের চুক্তি বাতিল করে দিয়েছে।

তবে এটা সবে শুরু মাত্র, ভারত চাইলে আগামী সময়ে আরো অনেক তুরস্ক কোম্পানিকে বাড়ি ফেরত পাঠাতে পারে।এখন তুর্কীর কোম্পানিগুলি ভারত প্রায় ৪৩০ মিলিয়ন ডলার নানা চুক্তিতে কাজ করছে। এর মধ্যে কিছু কোম্পানি মুম্বাই সাবওয়ে ও লক্ষণউ সাবওয়ে নির্মাণ কাজ করছে। কিছু কোম্পানি জম্মু-কাশ্মীরেও কাজ করছে। তাই ভারত সরকার যদি এই সমস্থ কোম্পানির থেকে চুক্তি কেড়ে নেয় তবে তুর্কিকে আরো বড়ো সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে। ভারত থেকে বহু পর্যটক তুর্কী যায়, সেক্ষেত্রেও ভারত সরকার বড়ো ঝটকা দিতে পারে। তুর্কীকে ঘিরে ফেলতে ভারত সরকার তুর্কীর দুটি শত্রুদেশ সাইপ্রাস ও আর্মেনিয়ার সাথেও সম্পৰ্ক দৃঢ় করছে।

you're currently offline