Press "Enter" to skip to content

রোহিঙ্গা মুসলিমদের ভারত থেকে তাড়াতে প্রস্তুতি নিচ্ছে মোদী সরকার।

বর্তমান ভারতের দিন দিন একটা সমস্যা প্রকট হয়ে উঠছে তা হলো রোহিঙ্গা সমস্যা। কংগ্রেস আমল থেকে শুরু করে এখনো পর্যন্ত যে হারে রোহিঙ্গা প্রবেশ করেছে তাতে দেশের মাথাব্যথা হয়ে দাঁড়িয়েছে রোহিঙ্গা মুসলিমরা। আপনাদের জানিয়ে রাখি এই রোহিঙ্গারা আসলে ের রাখাইন প্রদেশের বাসিন্দা। মায়ানমারে এই রোহিঙ্গা মুসলিমরা বৌদ্ধ ও হিন্দুদের উপর নির্মম হত্যাকান্ড চালায় যার পর মায়ানমার সরকার কড়া পদক্ষেপ নিয়ে এই কট্টরপন্থী রোহিঙ্গা মুসলিমদের দেশ থেকে বিতাড়িত করতে শুরু করে। বর্তমানে এরা অনেক বেশি সংখ্যায় বাংলাদেশ ও ভারতে ঢুকে পড়েছে। আপনাদের জানিয়ে রাখি ভারতের সংখ্যাগুরু হিন্দুদের নরম মনোভাবের দুর্বলতার সু নিয়ে এবং কংগ্রেস সরকারের সাহায্য বহু সংখ্যক রোহিঙ্গা ভারতে ঢুকে পড়েছে।কংগ্রেস আমলে সর্বপ্রথম জম্মুতে রোহিঙ্গাদের ঢোকানো হয়েছিল।

কারণ কিছু কট্টরপন্থীদের উদেশ্য ছিল হিন্দুবহুল জম্মুতে মুসলিম সংখ্যা বৃদ্ধি করে ইসলামিকরণ করতে। এখন অবশ্য থেকে হায়দ্রাবাদ সব জায়গায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে বাস করছে এই হিংস্র রোহিঙ্গা মুসলিমরা। জানলে অবাক হবেন ভারতের উরিতে যে জঙ্গি হামলা হয়েছিল সেখানে রোহিঙ্গা যোগ ছিল বলে জানিয়েছিল সহ অন্যান্য গুপ্তচর এজেন্সিরা। আর এর পরেই নড়েচড়ে বসে মোদী সরকার। বর্তমান কেন্দ্র সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যেভাবেই হোক রোহিঙ্গা মুসলিমদের ভারত থেকে বিতাড়িত করতে। শুধু এই নয় রোহিঙ্গা মুসলিমদের জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার এতটাই বেশি যে মাত্র কয়েক বছরের মধ্যেই এরা ভারতকে জনবিষ্ফোরণের চাপে ফেলতে পারে।

এক মাস আগেই রাজনাথ সিং জানিয়েছিলেন যে রোহিঙ্গাদের তাড়াতে প্রস্তুতি নিচ্ছে কেন্দ্র। এর জন্য সমস্ত রাজ্য সরকারকে চিঠি পাঠানো হবে রাজ্যের রোহিঙ্গা সংখ্যা বের করার জন্য। শুধু তাই নয় রোহিঙ্গারা যাতে কোনোরকমভাবে ভারতের বাসিন্দা হওয়ার প্রমাণপত্র না পায় সেই দিকেও নজর রাখতে বলা হবে। গতকাল আরো একবার কিরেন রিজিজ যিনি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী তিনি ফের তুলে ধরলেন রোহিঙ্গা ইশ্যুটি। তিনি এই ইশ্যুটি তুলে ধরে বলেন যে, এই রোহিঙ্গা মুসলিমরা হল সারা বিশ্বের সন্ত্রাস। এদের উদ্দেশ্য কখন ভালো কিছু হতে পারে না।

এরা আমাদের ভারতবর্ষের সরকারের চোখে অবৈধ অনুপ্রবেশকারী ছাড়া আর কিছু নয়। তাই এদের কে কোনো পরিস্থিতিতেই আমাদের দেশে থাকতে দেওয়া হবে না। কিছু দিন আগে হায়দ্রাবাদ এলাকাতে ভুয়ো পরিচয় পত্র সমেত বেশ কয়েকজন রোহিঙ্গা ধরা পরে। পরে তাদের জেরা করে জানা যায় যে তারা নকল পরিচয় পত্র দিয়ে আধার ভোটার বানিয়েছেন। তাই এবার সমস্ত রাজ্যে রাজ্যে নোটিশ পাঠিয়ে দিয়েছেন কোন মতেই যেন এই রোহিঙ্গারা প্রমানপত্র না বানাতে পারে এটি পরিষ্কার ভাবে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে কেন্দ্র সরকারের তরফ থেকে।

#অগ্নিপুত্র