Press "Enter" to skip to content

সাংসদের অধিবেশনে মোদী সরকার রাম মন্দিরের উপর আনতে চলেছে আইন! ২ নভেম্বর বৈঠকে বসবে RSS

গতকাল সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিরা হিন্দুদের আস্থ নিয়ে কিভাবে খেলা করেছে সেটা পুরো দেশ দেখেছে। পরকীয়া, সমকামী মামলায় যে বিচারকেরা চটপট রায় দিয়ে দেন, সাবরিমালা ইস্যুতে হিন্দু ধার্মিক নিয়ম ভাঙার রায় দিয়ে দেন, আতঙ্কবাদীদের জন্য মাঝরাতে আদালত খুলে বসেন তারাই গতকাল ৩ মিনিটে মামলা আরো ৩ মাস ঝুলিয়ে দেন। এই সমস্থকিছুর পেছনে কংগ্রেসের হাত রয়েছে বলেও অভিযোগ উঠেছে কারণ চিফ জাস্টিস রঞ্জন গগৈ এর পিতা একজন কংগ্রেসের বড়ো নেতা ছিলেন। এখন এটা সাফ হউই গিয়েছে যে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিরা ইস্যুতে রায় দিতে সক্ষম নয়। এখন পরবর্তী পদক্ষেপ কি হবে বা রামমন্দির আদেও হবে কিনা এই নিয়ে ৩ টি বড়ো খবর সামনে এসেছে। প্রথম, উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যানাথ বলেছেন – ধর্মের জন্য বলিদান দিতে প্রস্তুত থাকুন।

দ্বিতীয়, ২ নভেম্বর অর্থাৎ কয়েকদিন পরেই RSS রামমন্দিরের ইস্যুতে বৈঠকে বসবে। তৃতীয়, সূত্রের খবর শীতকালীন অধিবেশনে মোদী সরকার রাম মন্দিরের উপর কানুন আনবে, এই খবর এখনো অধিকারিকভাবে ঘোষণা করা হয়নি। প্রধানমন্ত্রী জাপানে রয়েছেন, উনি ফিরলেই এই ব্যাপারে নিশ্চিত খবর দেওয়া যাবে। খবর অনুযায়ী, সরকার কোনোভাবেই রামভক্তদের হতাশ করে এগোতে চাইছে না, ডিসেম্বরে ২০১৮ থেকে জানুয়ারি ২০১৯ এর শীতকালীন অধিবেশনে সরকার রামমন্দিরের জন্য একটা আইনের বিল নিয়ে আসতে পারে।

নরেন্দ্র মোদী

বিজেপি একমাত্র এই বিলের সমর্থন করবে যার জন্য বিল পাশ হতে পারবে না। তাই পুরো বিপক্ষ এর মুখোশ এখানেই খুলে যাবে। বিল পাশ না হওয়ায় তার উপর সরকার অধ্যাদেশ আনবে। অর্ডিন্যান্স ৬ মাসের জন্য বৈধ থাকে এর মধ্যে জনগণের সামনে হিন্দু বিরোধি কংগ্রেসের মুখোশ খুলে যাবে এবং মোদী সরকার হিন্দুদের সাথে হাত মিলিয়ে কাজ করার সুযোগ পাবে। এই বিষয়ে একটা বড়ো ইঙ্গিত বিজেপির কিছু কেন্দ্রীয় নেতা এমনকি সুব্রামানিয়াম স্বামীও দিয়েছেন।

সরকার একটা বড়ো কার্যবাহী করতে চলেছে এটা নিশ্চত হওয়া যাচ্ছে তবুও নরেন্দ্র মোদী দেশে না ফেরা অবধি মোড় কি হতে পারে তা সন্দেহের মধ্যে রয়েছে। এরপরেও যদি কোনোভাবে মামলা কেন্দ্রে হাত থেকে বেরিয়ে যায় তাহলে পুরোটাই যোগী আদিত্যানাথের সরকার দেখবেন বলে মনে করা হচ্ছে। কারণ জমি অধিগ্রহনের অধিকার একমাত্র উত্তরপ্রদেশ সরকারের রয়েছে যেটা করার সাহসও মুখ্যমন্ত্রীর মধ্যে রয়েছে।