ধর্মপ্রাণ হিন্দুদের বড়ো উপহার মোদী সরকারের !এবার হিন্দু তীর্থস্থান ঘোরাবে রামায়ণ এক্সপ্রেস।

এবার দেশের হিন্দু ধর্মপ্রান মানুষদের জন্য খুশির খবর নিয়ে এলো মোদী সরকার। রেলমন্ত্রক দেশের ধর্মপ্রান হিন্দুদের ধর্মীয় স্থান ভ্রমনের জন্য নুতন ট্রেন চালু করতে চলেছে। এই ট্রেনটি উত্তরপ্রদেশের অযোধ্য থেকে যাত্রা শুরু করবে। সেই যাত্রা পথে রামায়ণ মহাকাব্যে বর্ণিত বিভিন্ন ধর্মীয় স্থানগুলি ছুঁয়ে যাত্রা করবে এই নুতন ট্রেন। এই ট্রেন চালু করার মুল উদ্দেশ্য হল ধর্মীয় ভ্রমণকে উৎসাহিত করা। এই ট্রেনটির নাম রাখা হয়েছে “রামায়ন”। এই ট্রেনটি সমগ্র যাত্রা পথে সময় নেবে ১৬ দিন। সেই ট্রেনে যাত্রীর সুবিধার কথা ভেবে খাবারের ব্যাবস্থা থাকবে। এই ট্রেনে একসাথে মোট ৮০০ জন যাত্রা করতে পারবে। এত কিছু সুবিধা থাকার সত্তেও ভাড়া হিসাবে মাত্র ১৫১২০ টাকা নেওয়া হবে। শোনা যাচ্ছে এই ট্রেন যাত্রা শুরু করবে ১৪ ই অগাস্ট।
দিল্লির সফদরজঙ্গ স্টেশন থেকে এই ট্রেন টি সফর শুরু করবে। প্রথম স্টপেজ, উত্তর প্রদেশে অযোধ্যায় যেখানে শ্রী রামে চন্দ্রের জন্মস্থান।

Ramayana Express

তারপর রামকোট, হনুমানগড়ি, কনক ভবন মন্দির ছুঁয়ে ট্রেন যাবে ভরতের তপস্যাস্থল যেখানে রাম বনবাস থেকে না ফেরা পর্যন্ত কৈকেয়ীপুত্র তপস্যা করেছিলেন নন্দীগ্রামে যেটি বর্তমানে ফৈজাবাদের কাছে অবস্থিত। যেসব জায়গাতে ট্রেন থামবে সেখানে তাদের সমস্ত রকম দেখা শোনার দায়িত্বে থাকবে আইআরসিটিসি–র সদস্যরা। তারা তীর্থযাত্রীদের মালপত্র পৌঁছে দেওয়া থেকে শুরু করে তাদের রাতে থাকা সব কিছুর দায়িত্ব নেবে।
যাত্রিদের কাছে কেমন সাড়া মেলে তার উপর নির্ভর করবে যে মাসে কতবার সেই ট্রেন চলবে। তবে ট্রেন থেকে স্থল পথে যে সব জায়গায় গিয়ে তীর্থ ভ্রমন করবেন যাত্রীরা তার সব ব্যাবস্থা করবে রেল। এমন কি যদি কেও শ্রীলঙ্কায় যেতে চাই তাদের পৌছেঁ দেওয়া হবে চেন্নাই বিমানবন্দরে।

ইন্ডিয়ান রেলওয়ে কেটারিং ও ট্যুরিজম কর্পোরেশনের এক আধিকারিক জানিয়েছেন যে এই ট্রেনে খুব সুলভ মুল্যে যাত্রীরা যাতায়াত করতে পারবেন। তাদের সমস্ত রকম দায়িত্ব যেমন তাদের খাওয়া থেকে শুরু করে রাতে থাকা, তাদের মাল পত্র নিয়ে যাওয়া এমনকি তাদের গাইড হিসাবেও তাদের সাথে সবসময় থাকবে রেলের আধিকারিক। এই যাত্রাই তাদের যাতে কোনো রকম অসুবিধা না হয় সেই দিকে সব নজর রাখা হবে বলে জানানো হয়েছে রেলমন্ত্রকের তরফ থেকে।
#অগ্নিপুত্র

you're currently offline

Open

Close