Press "Enter" to skip to content

বড়ো সিধান্ত: ভারতের শিক্ষা ব্যাবস্থাকে পালটে ফেলতে ১ লক্ষ কোটি টাকা নিবেশ করবে মোদী সরকার।

এবার নরেন্দ্র মোদী দিলেন এক অসাধারন বার্তা। দিল্লির ভবনে শিক্ষা সংক্রান্ত একটি অনুষ্ঠান হয় সেই অনুষ্ঠানে যোগদান করতে এসে প্রধানমন্ত্রী বলেন যে, পড়ুয়াদের মধ্যে এবার সমাজের আসল দিক গুলি তুলে ধরতে হবে। এখন আর শিক্ষা কে শুধুমাত্র ক্লাসরুমের মধ্যে সীমাবদ্ধ করে রাখলে হবে না। এর বিস্তার ঘটাতে হবে বাইরের দুনিয়ায়। প্রধানমন্ত্রী এইদিন বলেন যে, শিক্ষাক্ষেত্রের উন্নতির জন্য শিক্ষাক্ষেত্র গুলিতে অনেক টাকা বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিজেপি । নুতন এক প্রকল্প RISE আনা হচ্ছে দেশের শিক্ষাব্যবস্থার পরিকাঠামোকে উন্নত করবার জন্য। ১ লক্ষ কোটি টাকা খরচ করবে শুধুমাত্র শিক্ষাক্ষেত্রের পরিকাঠামো উন্নতি করার জন্য। আর এটা ২০২২ সালের মধ্যেই করা হবে।

এদিনের অনুষ্ঠানে দেশের প্রাচীনতম শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলি যেমন: তক্ষশীলা, , বিক্রমশীলার মত বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের উদাহরণ টেনে তিনি বলেন যে, শুধুমাত্র উচ্চশিক্ষা, উচ্চবিচার, উচ্চআচারের মধ্যে আমাদের সীমাবদ্ধ থাকলে হবে না সেই সঙ্গে দরকার সমাজের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করা। সেই সমস্যা গুলি ভালোভাবে উপলব্ধি করাও প্রয়োজন আছে।

তাই প্রধানমন্ত্রীর বিশ্ করেন যে, কেবলমাত্র বই এর পাতায় আবদ্ধ রাখলে চলে না জ্ঞান ও শিক্ষা কে। কারন সর্বক্ষেত্রে বিকাশ করাই হল শিক্ষার মূল লক্ষ্য। আর এটা একমাত্র উদ্ভাবনী শক্তি দিয়েই করা সম্ভব। প্রধানমন্ত্রী এইদিন আরও বলেন যে, এই মহান বিশ্বে পৃথিবীর কোনও ব্যাক্তি, সমাজ অথবা দেশ কেউই একা একা থাকতে পারেন না, এটা আমাদের মেনে নিতেই হবে।

সেই সাথে আমাদের মাথায় এটাও রাখতে হবে গ্লোবাল ভিলেজ ও গ্লোবাল সিটিজেনের কথা। আমাদের ভারতবর্ষের সমাজ সংস্কারে এইরকম চিন্তাধারা অনেক দিন আগে থেকেই রয়েছে। একই সাথে দেশের প্রধানমন্ত্রী মোদীজি উদেশ্য যে, শিক্ষার্থীরা কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ে যাক সেই সাথে দেশের জন্যও কিছু কাজ সমর্পণ করুক।
#অগ্নিপুত্র