Press "Enter" to skip to content

এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণে বড়ো বড়ো রেকর্ড ভাঙার পর, এখন এবার ১ লক্ষ ৯০ হাজার কোটি টাকার বিরাট প্রজেক্ট নিয়ে হাজির কেন্দ্র।

সরকার যেদিন থেকে এসেছে সেই দিন থেকে দেশের সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করেই চলেছেন। তার সাথে করে যাচ্ছেন দেশ কে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার মতো মহৎ কাজ। দেশকে বিশ্বের দরবারে এক আলাদা মাত্রায় প্রতিষ্ঠান দেওয়ার জন্য একের পর এক ভালো উন্নয়নমূলক পদক্ষেপ ইতিমধ্যেই নিয়ে ফেলেছেন মোদীজি। বিশেষ করে এক্সপ্রেস ওয়ে নির্মাণে কংগ্রেস আমলের রেকর্ডকে বহু পেছনে ফেলে দিয়েছে। সরকারের এক্সপ্রেস ওয়ে নির্মাণ থেকে বাদ যায়নি পশ্চিমবঙ্গও। গ্র্যান্ডট্রাঙ্ক রোড থেকে শুরু করে NH-34 এর মত গুরুত্বপূর্ণ সড়কপথ প্রশস্ত করে রাজ্যবাসীকে উপহার দিয়েছে সরকার। এখনও সরকার দেশের জন্য নুতন নুতন প্রকল্প ঘোষনা করে যাচ্ছেন। সরকার দেশকে বেশ কিছু বড়ো বড়ো এক্সপ্রেস ওয়ে , এমনকি পেরিফেরাল এক্সপ্রেস ওয়ে উপহার দিয়েছে। এবার কেন্দ্রীয় সরকার আনতে চলেছে ১ লক্ষ ৯০ হাজার কোটি টাকার প্রজেক্ট যেটা শুধুমাত্র রাস্তা তৈরীর জন্যই খরচ হবে।

কেন্দ্রীয় সড়ক ও পরিবহনমন্ত্রী নীতিন গতকড়ি এই ব্যাপারে জানিয়েছেন যে, দেশের উত্তর-পূর্বে ১৪,০০০ কিলোমিটার রাস্তা তৈরি হবে এই প্রকল্পের মাধ্যমে। মঙ্গলবার সাংবাদিক সম্মেলন করে এমনই জানিয়েছেন তিনি। তিনি আরও বলেন যে, সরকার প্রথম থেকেই গুরুত্ব দিয়ে আসছে এই অঞ্চলের উন্নয়নে। গাতকড়ি দু’দিনের সফরে শিলং গিয়েছিলেন সোমবার। সেখানেই তিনি এমনটা জানান।

পরিবহণ মন্ত্রী জানিয়েছেন, ১ লক্ষ ৬৬,০২৬ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে ১০,০০০ কিলোমিটার রাস্তা তৈরীর জন্য। আর সেই টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে ন্যাশনাল হাইওয়ে অ্যান্ড ইনফ্রাস্ট্রাকচার ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশন লিমিটেডের আওতায়। এছাড়াও আলাদাভাবে আরও ৭০০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে ৮৫০ কিলোমিটার রাস্তা তৈরি করার জন্য। পাবলিক ওয়ার্কস ডিপার্টমেন্টের জন্য কেন্দ্রীয় সরকার ১৭,২৫৭ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছেন।

সেই সাথে তিনি এটাও জানান, NHAI উত্তর-পূর্ব অঞ্চল থেকে সরে চলে আসবে যখন এই প্রজেক্টের কাজ শেষ হয়ে যাবে। কারন দেশের আরও নানান অংশে এইরকম আরও অনেক কাজ আছে। আর সেগুলির দায়িত্ব কেন্দ্র সরকার এই সংস্থাকেই দিয়েছেন বলে তিনি জানান। তিনি আরও জানান যে, ইতিমধ্যে ৪৬,০০০ কোটি টাকার রাস্তা তৈরীর কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে অসমে।
#অগ্নিপুত্র