Press "Enter" to skip to content

২০১৯ এ নরেন্দ্র মোদী প্রধানমন্ত্রী হওয়া উচিত,৫ বছর যথেষ্ট নয়:কঙ্গনা রানাউত।

এমনিতে বলিউড প্রেমী ও হিন্দুবিদ্বেষী মানুষের জন্য পাকে পরিনত হয়েছে ,কিন্তু কোথায় আছে পাকে পদ্মও ফোটে। এই বলিউডে কিছু কিছু মানুষ আছেন যারা যুক্তিযত কথা বলেন এবং দেশের হিতে কথা বলেন। বলিউডের এইরকম মানুষদের একজন কঙ্গনা রানাউট যিনি আগেও দেশের হিতে কথা বলেছেন। কাল মুম্বাইতে চলো জিততে হ্যায় নামক একটা স্ক্রিনিংয়ে , পীযুষ গোয়েলের সাথে বলিউডের কঙ্গনা রানউট, অক্ষয় কুমার, আমিশা প্যাটেল এবং খেলার জগতের থেকে শচীন টেন্ডুলকার সহ বেশকিছুজন উপস্থিত ছিলেন। এই অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নিয়েও আলোচনা হয়। অনুষ্ঠান চলাকালীন এক সাংবাদিকের কাছে কঙ্গনা, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সম্পর্কে যা বলেন তা মনকে ছুঁয়ে যাওয়ার মতো।

কঙ্গনা বলেন, মোদী দেশের জন্য সবথেকে ভালো বিকল্প। মোদী নিজের খানদানের জন্য প্রধানমন্ত্রী হননি বরং উনি উনার কঠোর পরিশ্রম ও ক্ষমতার কারণে এই স্থানে পৌঁছেছেন। একই সাথে কঙ্গনা বলেন, দেশ যে অবস্থায় ছিল সেই অবস্থা থেকে দেশকে ঠিক করার জন্য ৫ বছর খুব কম সময় তাই মোদীজিকে আবার প্রধানমন্ত্রী পদে বসানো উচিত। কঙ্গনার কথায় যে যুক্তি রয়েছে একথা অস্বীকার করা যায় না কারণ নরেন্দ্র মোদী একটা দরিদ্র পরিবার থেকে এসেছেন এবং উনার পরিবার আজও গুজরাটে সাধারণ জীবনযাপন করে।

কিন্তু বিরোধী দলের নেতা গান্ধী কেন রাজনীতির সাথে যুক্ত তা নতুন করে বলার কিছু নেই। আর দেশের অবস্থার দিক দেখলে প্রধানমন্ত্রী পদে যখন থেকে নরেন্দ্র মোদী বসেছেন তখন থেকে দেশের GDP বহু শক্তিশালী দেশকে পেছনে ফেলে দিয়েছে।আপনাদের জানিয়ে রাখি কঙ্গনা এর আগেও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সম্পর্কে তার বক্তব্য পেশ করেছিলেন এবং তিনি নিজেকে মোদীজির বড় ভক্ত বলে দাবি করেছিলেন।

শুধু এই নয় যখন সম্পর্ক খারাপ হওয়ায় পাকিস্থানি আর্টিস্টদের ব্যান করার কথা উঠছিল সেই সময় পাকিস্থানপ্রেমী কিছু বলিউড অভিনেতা এর বিরোধিতা করেছিলেন। কঙ্গনা সেই সময়যেও ভারতের সেনাদের পক্ষ নিয়ে পাকপ্রেমীদের কড়া জবাব দিয়েছিলেন।