Press "Enter" to skip to content

এবার হিন্দু ধর্মকে খোলাখুলি কুৎসিত গালি দিলেন অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত।

নাম ের মনে হলেও, বিদেশের বিশেষ করে আমেরিকা,ইউরোপ ইত্যাদির ভিসা সহজে নেওয়ার জন্য ও নিজের বিশেষকিছুর স্বার্থের জন্য খ্রিস্টান ধর্ম গ্রহণ করে নিয়েছে। হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে খ্রিষ্ট ধর্ম গ্রহণ করে নিয়েছে। এই পর্যন্ত ঠিক ছিল, কারণ যার যেমন ইচ্ছা ধর্ম গ্রহণ করতে পারে এটা নিজের পছন্দের উপর। কিন্তু ” প্রত্যেক ধর্ম অন্য ধর্মকে সম্মান ও শ্রদ্ধা করতে শেখায়” এই বিশেষ উক্তি কেন ধর্ম পরিবর্তনকারী মানুষদের মধ্যে দেখা যায় না এই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। ধর্ম পরিবর্তন করার পর থেকে সরাসরি হিন্দু ধর্মকে গালি দিতে শুরু করে দিয়েছে। হিন্দু ধর্মের বিশেষ প্রাচীন সিদ্ধান্তকে খোলাখুলি কুৎসিত গালি দিতে শুরু করেছে । খ্রিষ্টান ধর্ম গ্রহণ করার পর বলেছেন বুলশিট(Bullshit) জিনিস, অর্থাৎ ফালতু একটা অর্থহীন জিনিস।

বলে রাখি, মোক্ষ হিন্দু ধর্মের একটা প্রাচীন সিধান্ত তথা ভারতীয় ধর্মদর্শনের একটা ধারণা। এটা হিন্দু ধর্মের একটা এমন বিশেষ ও গুরুত্বপূর্ন সিধান্ত যার ধারনা প্ৰাচীন কালের ঋষিমুনি থেকে আধুনিক কালের স্বামী বিবেকানন্দ পর্যন্ত মানুষের মধ্যে প্রচার করেছিলেন। কিন্তু এখন তনুশ্রী দত্ত হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে খিষ্টান ধর্ম গ্রহণ করেই এই মোক্ষ সিধান্তকে গালি দিতে শুরু করেছে। জানিয়ে দি, সম্প্রতি গুরগাঁওতে মহিপাল নামক এক ব্যক্তি যিনি হিন্দু ছেড়ে খ্রিস্টান হয়েছেন তিনিও দুই জনকে গুলি করেছে।

কারণ মহিপাল সেই দুজনকে খ্রিষ্টান ধর্মগ্রহন করার জন্য চাপ দেওয়া সত্ত্বেও তারা ধর্ম পরিবর্তনে অস্বীকার করেছিল। আসলে মিশনারি দ্বারা ধর্মান্তরিত করবার পর এদেরকে টার্গেট দেওয়া হয় আর হিন্দুদের ধর্মান্তরণ করার জন্য আর এই কাজেই লেগে পড়েছে মহিপাল ও তনুশ্রী দত্তের মতো বিধর্মীরা। খ্রিষ্টান মিশনারিরা এইভাবেই হিন্দু ধর্মকে টার্গেট করে গালিগালাজ করে এবং হিন্দুদের নীচু দেখানোর চেষ্টা করে যাতে আরো বেশি সংখ্যাই ধর্মান্তরণ করা সম্ভব হয়। তনুশ্রী দত্ত সিনেমা জগতে নেমে পুরো ক্যারিয়ার অশ্লীল পোজ দিয়েই পর করেছে কারণ ম্যাডামের কাছে কোনো শিক্ষাকলা বা অভিনয়ের ট্যালেন্ট ছিল না।

ভেবেছিলেন শরীর দেখিয়ে সিনেমা হিট হবে কিন্তু শেষমেষ ব্যার্থ হয়ে ফ্লপফ্লিমবাজে পরিণত হয়েছেন। তাই হিন্দু ধর্ম ছেড়ে স্বার্থের লোভে ক্রিষ্টান ধৰ্ম গ্রহণ করেছেন এবং এখন হিন্দু ধর্মকে খোলাখুলি কুৎসিত গালিগালাজ করছেন। মিশনারিগুলো ভালো করেই জানে যে এখন ভারতের হিন্দুরা ঘুমন্ত, তাই এই সুযোগে হিন্দু ধর্মের মূল সিধান্তকে গালি দিয়ে, ছোট করে যত বেশি ধর্মান্তরণ করা যায় ততই লাভ। তনুশ্রী দত্তের বহু হিন্দু ভারতীয় মেয়ে ফ্যান রয়েছে যারা তনুশ্রী দত্তেও সমস্থ কিছুতেই সমর্থন করে। তাদেরকে এই সুযোগে খ্রিষ্টান ধর্মে টেনে নেওয়া খুব সহজ বলেই মিশনারির নির্দেশে এজেন্ডা চালাচ্ছে তনুশ্রী দত্ত।