Press "Enter" to skip to content

মোদীর কূটনীতিতে চিন্তায় চীন সরকার। চীনের প্রতিবেশী দেশ মঙ্গোলিয়াকে নিজের পক্ষে করে নিল ভারত।

মঙ্গোলিয়ার রাষ্ট্রপতি আজ পাঁচ দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে দিল্লি সফর করবেন। যার জন্য চীনের কপালে ভাঁজ পড়তে শুরু হয়েছে। আসলে মঙ্গোলিয়া চীনের প্রতিবেশী দেশ এবং চীনের সাথে মঙ্গোলিয়ার সম্পর্ক খুব একটা ভালো না। এটাকে কাজে লাগাতে নেমে পড়েছে ভারত সরকার। সেক্ষেত্রে ভারত মঙ্গোলিয়াকে স্বনির্ভর করার জন্য সাহায্য করছে। যাতে চীনের বিস্তারবাদী নীতিকে কাউন্টার করা যায়। চীন ভারতকে ঘিরে ফেলার জন্য যে পরিকল্পনা করেছিল সেটাকে ভাঙতে ভারতও একটা পরিকল্পনা করেছে। আর মঙ্গোলিয়ার সাথে ভারতের দৃঢ় সম্পর্কের কারণ এটাই। প্রধানমন্ত্রী মোদী ২০১৮ সালে মঙ্গোলিয়া সফরে গেছিলেন। রাজনাথ সিং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী থাকাকালীন মঙ্গোলিয়া সফর করেছিলেন।

ভারত আগেই মঙ্গোলিয়াকে অয়েল রিফানারী  স্থাপনের জন্য 1 বিলিয়ন US ডলার লোন লাইন অফ ক্রেডিট এ দিয়েছে। যা দিয়ে মঙ্গোলিয়া রিফনারী স্থাপনের কাজ শুরু করেছে। ২০২২ পর্যন্ত এই কাজ শেষ হবে বলে মনে করা হচ্ছে। মঙ্গলিয়ায় তেলের বিশাল ভান্ডার রয়েছে। এত তেল থাকার জন্য এটাকে এশিয়ার সৌদি আরব বলা হয়। কিন্তু রিফনারী না থাকায় মঙ্গোলিয়া এটাকে সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারতো না। চীনও এই দেশটির উপর নিজের প্রভাব বিস্তার করার চেষ্টা করতো। তবে এবার ভারত সরকার নিজের কূটনীতিক চালে চীনকে মাত দিয়েছে এবং মঙ্গোলিয়াকে নিজেদের দিকে টেনে নিতে সক্ষম হয়েছে। মঙ্গোলিয়ান রাষ্ট্রপতি খালতমাগেইন বাটুলগা আজ বিকেলে ভারতে পৌঁছে তাঁর বহুমুখী কাজ শুরু করবেন। মঙ্গোলিয় রাষ্ট্রপতির এই সফরের সাথে এক উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তা ও ব্যবসায়ী প্রতিনিধি দল থাকবেন।

আগামীকাল রাষ্ট্রপতি ভবনের পূর্বাঞ্চলে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বাগত জানানো হবে মঙ্গোলিয়ান রাষ্ট্রপতি। খালতামগিন বাতুলগা রাষ্ট্রপতি রাম নাথ কোবিন্দ, উপরাষ্ট্রপতি এম ভেঙ্কাইয়া নাইডু এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাথে দেখা করবেন। মঙ্গোলিয়ার রাষ্ট্রপতি ভারতের সাথে আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক ইস্যুতে নিবিড় আলোচনা করবেন। এই সমস্যাগুলির মধ্যে রয়েছে অবকাঠামো, শক্তি, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, প্রতিরক্ষা, সুরক্ষা, সংস্কৃতি এবং সক্ষমতা বৃদ্ধি। উভয় দেশ দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতাও খুব ঘনিষ্ঠভাবে পর্যালোচনা করবে। মঙ্গোলিয়ান রাষ্ট্রপতির সম্মানে একটি ভোজও অনুষ্ঠিত হবে, যা রাষ্ট্রপতি রাম নাথ কোবিন্দের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হবে।

খালতমাগিন বাটুলগা নয়াদিল্লিতে ভারত-মঙ্গোলিয়া বিজনেস ফোরামে অংশ নেবেন এবং দু’দেশের ব্যবসায়িক সম্পর্কের বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবেন। ভবিষ্যতের সম্ভাবনার সন্ধানে তীব্র আলোচনা অনুষ্ঠিত হবে। তার অবস্থানকালে, মঙ্গোলিয় রাষ্ট্রপতি আগ্রা, বোধগয়া এবং বেঙ্গালুরু সফর করবেন।

খাল্টামগিন বাতুলাগার ভারত সফর গত ১০ বছরে মঙ্গোলিয় রাষ্ট্রপতির প্রথম রাষ্ট্রীয় সফর। এই মাসের শুরুতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং রাষ্ট্রপতি খাল্টামগিন বাতুলাগার
রাশিয়ায় একে অপরের সাথে দেখা করেছিলেন। রাশিয়ার ভ্লাদিভোস্টকে অনুষ্ঠিত ইস্টার্ন ইকোনমিক ফোরামের কর্মসূচির সময় দুই দেশের নেতারা বৈঠক করেছিলেন।

you're currently offline