Press "Enter" to skip to content

ন্যাশনাল হেরাল্ড এর অনুযায়ী মধ্যেপ্রদেশ নির্বাচনে কোন দল বহুমত পেতে চলছে জানলে অবাক হবেন।

২০১৯ সামনে, তাই প্রত্যেকটি নির্বাচনের উপর দেশের জনগণের নজর প্রখরভাবে রয়েছে। সম্প্রতি এ মধ্যেপ্রদেশের আগামী নির্বাচনকে নিয়ে একটা সার্ভে হয়েছে। এ ছাপা এই সার্ভে সকলকে চমকে দিয়েছে। এ বলা হয়েছে মধ্যেপ্রদেশে কংগ্রেস ও বহুজন সমাজবাদী পার্টির মধ্যে জোটবন্ধন অতিআবশ্যক। কারণ জোট না তৈরি হলে বিজেপিকে হারানো খুবই মুশকিল হবে । এ এটাও বলা হয়েছে যে মধ্যপ্রদেশ নির্বাচনে বহুমত লাভ করবে নরেন্দ্র মোদীর সরকার। এ এটাও স্বীকার করা হয়েছে যে যদি জোটবন্ধন হয়েও যায় তাহলেও বিজেপির বহুমত পাওয়ার সুযোগ অনেক বেশি রয়েছে। কিন্তু যদি কংগ্রেস ও বসপার জোটবন্ধন না হয় তাহলে ক্ষমতা থেকে বিজেপিকে কেউ সরাতে পারবে না। তামিলনাড়ুর স্পিক মিডিয়ার দ্বারা ২৭ জুলাই একটা সমীক্ষা জারি করা হয়েছিল।

হেরাল্ডে প্রকাশিত এই সমীক্ষায় বলা হয়েছে যদি, কংগ্রেস ও বসপা জোট না করে লড়াই করে তাহলে বিজেপি ১৪৭, কংগ্রেস ৭৩, বিএসপিকে ৯ এবং অন্যান্যদের ১ সিট মিলবে। আর যদি কংগ্রেস ও বহুজন সমাজবাদী পার্টির জোট হয় তাহলে বিজেপি ১২৬, কংগ্রেস ও বিএসপি ১০৩ এবং অন্যান্যরা ১০৩ টি সিট পেটে পারে।

তামিলনাড়ুর স্পিক মিডিয়া এই সমীক্ষা প্রকাশ করার পর জানিয়েছে যদি কংগ্রেস ও বিএসপি জোট না হয় তাহলে রাজ্যে সরকারের পরিবর্তনের কোনো আশা নেই। এখন মজাদার বিষয় এই যে ন্যাশনাল হেরাল্ড কংগ্রেসেরই মুখ্যপত্র। কিন্তু এই সমীক্ষা প্রকাশের পর কংগ্রেস নেতা অভয় ডুবে বলেন, ‘ন্যাশনাল হেরাল্ড এ প্রকাশিত সমীক্ষা আমাদের নয়, মধ্যপ্রদেশে এবার কংগ্রেসের সরকার হবে।’

উল্লেখ্য, কংগ্রেসের মুখ্যপত্র বলে ন্যাশনাল হেরাল্ড কিছুদিন আগে রাফেলের নিয়ে লেখা প্রকাশ করেছিল যেখনে তারা লিখেছিল রাফেল বফোর্স ঘোটালা, এই বিষয় নিয়ে বিজেপি কংগ্রেসকে আক্রমণ করে যে রাফেলের বাহানায় কংগ্রেস স্বীকার করলো, তাদের আমলে বফোর্স ঘোটালা হয়েছিল। তখন তারা স্বীকার করেছিল যে ন্যাশনাল হেরাল্ড তাদের মুখ্যপত্র। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই নিয়ে হইচই শুরু হয়েগেছিল কারণ যে কংগ্রেস এতদিন বফোর্স ঘোটালা থেকে মুখ ফিরিয়ে নিতো তারা আজ বিজেপিকে আক্রমণ করতে গিয়ে বিষয়টি স্বীকার করেছিস।

এখন গুরুত্বপূর্ণ বিষয় এই যে কংগ্রেস তাদের মুখ্যপত্রে স্বীকার করেছে যে তারা মধ্যেপ্রদেশে আরো একবার হারের সম্মুখীন হতে চলেছে। কিন্তু তা সত্বেও জোটবন্ধন করে তারা শেষ প্রচেষ্টা করার ইচ্ছায় রয়েছে।