Press "Enter" to skip to content

বড় খবর: জারি হলো বিশ্বের সবথেকে বেশি মুসলিম জনসংখ্যাবিশিষ্ট দেশের তালিকা! ভারতের স্থান চমকে দেওয়ার মতো।

এই দুনিয়ায় জাতির দিক দিয়ে বিচার করলে দেখা যাবে যে, অন্য সব জাতিধর্মের থেকে সম্প্রদায়ভুক্ত লোকই বেশি জনসংখ্যা বৃদ্ধি করে। এই মহান দুনিয়ায় অন্য সকল ধর্মের লোকের থেকে ধর্মের মানুষের সংখ্যা বেশি হয়ে যাচ্ছে দিন দিন। আপনি সত্যি এটা জানার পর একটু হলেও অবাক হবেন যখন জানবেন শুধুমাত্র এই পৃথিবীতে ১.৬ বিলিয়ন সংখ্যায় আছে। আপনাদের জানিয়ে রাখি যে, সম্প্রদায়কে মূলত দুটি ভাগে ভাগ করে দিয়েছেম ধর্মগুরুরা। তাদের ভাগের প্রথম বিভাগে রয়েছে সিয়া এবং দ্বিতীয় বিভাগে রয়েছে সুন্নি। এছাড়াও এদের আরও একটি তৃতীয় সম্প্রদায় রয়েছে যাদের বলা হয় সোয়াইন।

এই মহাবিশ্বে নিজেদের শিকড় ছড়িয়ে রেখেছেন মুসলিম সম্প্রদায় মানুষজন। আপনাদের এটা জানা দরকার যে, সারা বিশ্বে যত মুসলিম রয়েছে তার প্রায় ১২.৬% মুসলিম শুধুমাত্র ইন্দোনেশিয়ায় রয়েছে, যেটা একজোট হিসাবে সবচেয়ে বেশি। তারপরই রয়েছে জঙ্গিদেশ হিসাবে পরিচিত পাকিস্তান সেই দেশে রয়েছে ১১% মুসলিম। আর ১১.৯% মুসলিম রয়েছে ভারতে। এছাড়াও আরব দেশে বসবাস করে ২০% মুসলিম। মধ্যপ্রাচ্য ইরান, পাকিস্তান, তুরস্ক, আরব এই সকল দেশগুলি মুসলিম সম্প্রদায়ভুক্ত দেশ হিসাবে পরিচিত। এছাড়াও আফ্রিকা ভিত্তিক, মিশর, নাইজেরিয়া এই সকল দেশ গুলিতেও রয়েছে বহু মুসলিম।

আপনাদের জানিয়ে রাখি যে, কিছুদিন আগে আমেরিকান ইনস্টিটিউট পিউ রিসার্চ সেন্টার তাদের একটি সার্ভে করে সেখানে তারা পৃথিবীর অনেক দেশকে একসাথে নিয়ে সার্ভে করে। সেই সার্ভের পর তারা দাবি করেন যে, ২১০০ সালের মধ্যে দুনিয়ায় সবচেয়ে বেশি সংখ্যায় বসবাসকারী খ্রিষ্টানদের কেউ পিছনে ফেলে দিয়ে মুসলিমদের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি হয়ে যাবে। ভারতের এইরকম অবস্থা অর্থাৎ জনসংখ্যার দিক দিয়ে অন্য সব জাতির লোক কে পিছনে ফেলে মুসলিমদের সংখ্যা বেশি হয়ে যাবে ২০৫০ সালের মধ্যেই এমনটাই ধারনা করা হয়েছে। সেই সাথে ইন্দোনেশিয়া কে পিছনে ফেলে দিয়ে দুনিয়ার সবচেয়ে বেশি মুসলিম বসবাসকারী দেশ হিসাবে আত্মপ্রকাশ করবে ভারতবর্ষ এমনই এক তথ্য উঠে এসেছে সার্ভেতে।

মুসলিমদের সর্বাধিক জনসংখ্যাবেষ্টিত দেশ হল ইন্দোনেশিয়া এমনই এক রিপোর্ট পেশ করেছিল আমেরিকান ইনস্টিটিউট পিউ রিসার্চ সেন্টার। এই সার্ভে তারা ২০১১ সালে করেছিল। এই সার্ভেতে ব্যাবহার করা হয়েছিল ৩৯ টি দেশ কে।

আপনাদের জনিয়ে রাখি যে, এই সংস্থা আরও কয়েকটি বিশেষ রিপোর্ট দাবি করেছিল। তারা এটাও জানিয়েছিল যে, মুসলিমজাতি তাদের সংখ্যা বাড়ানোর জন্য অনেক অনেক সন্তান জন্ম দেয়। তাদের অন্য বয়সের তুলনায় সন্তানের সংখ্যা অনেক বেশি। যদি এই বাচ্ছা জন্মানোর উপর কোনো নিয়ন্ত্রণ না করা হয় তাহলে একদিন এই বিশ্বে মুসলিম দের সংখ্যা ছাড়িয়ে যাবে অন্যসব জাতিকে। ভারতবর্ষে প্রতি বছর এত হারে মুসলিম বাচ্ছা জন্ম নেয় যেটা মুসলিম দেশ গুলির তুলনায়ও বেশি।

ইন্দোনেশিয়ায় যত মুসলিম জন্ম নেই তার সংখ্যাকেও ছাড়িয়ে গিয়েছে ভারত এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছেন আমেরিকার ওই সংস্থা। তারা ভারতের মুসলিমদের আধিপত্য বাড়ার জন্য দায়ি করেছেন কয়েকটি রাজনৈতিক দলের মুসলিম তোষন কে। তাই যত তাড়াতাড়ি সম্ভব মুসলিম মহিলাদের মধ্যে শিক্ষার বিস্তার করতে হবে যাতে ধর্মের সংখ্যার অনুপাত অপরিবর্তনীয় থাকে।
#অগ্নিপুত্র