Press "Enter" to skip to content

কেরালার বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের জন্য খাজনা ভান্ডার খুলে মুকেশ আম্বানি দান করলো এত কোটি টাকা।

কেরলে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ মানুষদের সাহায্যের লক্ষে বড়ো পদক্ষেপ নিলো ও তার সংস্থা রিলায়েন্স। রিলায়েন্স কোম্পানির একটি বিভাগ হল রিলায়েন্স ফাউন্ডেশন, যারা জনসেবামূলক কাজকর্ম গুলি দেখাশোনা করেন। সেই রিলায়েন্স ফাউন্ডেশন কেরলের বন্যাদুর্গত দের জন্য ২১ কোটি টাকার আর্থিক সাহায্যদান দেওয়ার ঘোষনা করল সেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর রিলিফ ফান্ডে। সেই সাথে এই রাজ্যে ৫০ কোটি টাকার ত্রাণ সামগ্রী পাঠাচ্ছে রিলায়েন্স রিটেল। মুকেশ আম্বানির স্ত্রী নিতা আম্বানি যিনি রিলায়েন্স ফাউন্ডেশনের চেয়ারপার্সন উনিও এই কেরালার বন্যার উপর দুঃখ প্রকাশ করে মন্তব্য করেন। তিনি বলেন যে, একজন সহনাগরিক ও দায়িত্বশীল কর্পোরেট ফাউন্ডেশন হিসাবে “কেরলবাসী ভাই বোনেরা যে ভাবে কষ্টের মধ্যে দিয়ে দিন কাটাচ্ছেন, অসুবিধার মধ্যে দিয়ে জীবনযাপন করছেন সেই পরিস্থিতিতে দাড়িয়ে তাঁদের পাশে দাঁড়ানো ও ত্রাণে সহায়তা করা আমাদের কর্তব্যবোধের মধ্যে পড়ে। ”

রিলায়েন্স ফাউন্ডেশনের চেয়ারপার্সন নীতা অম্বানী জানিয়েছেন যে, দেশের যেকোনো জায়গায়, যখনই কোনো প্রাকৃতিক বিপর্যয় ঘটেছে ঠিক সেই সময় দেরি না করে সেখানকার বিপর্যস্ত মানুষদের পাশে গিয়ে দাঁড়িয়েছে রিলায়েন্স ফাউন্ডেশ। তারা সবার আগে গিয়ে ওষুধ, ত্রান সামগ্রী পাঠিয়েছেন। আর্থিকভাবে সাহায্য করেছেন সেখানকার সরকারকে।

রিলায়েন্স ফাউন্ডেশন কেরলের ছ’টি জেলাতে বন্যা ত্রাণ সামগ্রী ও উদ্ধারের কাজ চালানো শুরু করে দিয়েছে গত ১৪ অগস্ট থেকে। এছাড়াও রিলায়েন্স ফাউন্ডেশনের তরফ থেকে যোগাযোগ ব্যাবস্থার জন্য টোল ফ্রি নাম্বার চালু করে দেওয়া হয়েছে। এর মাধ্যমে খুব সহজেই আবহাওয়া ও বিভিন্নরকম খবর খুব সহজেই পাচ্ছেন সেখানকার মানুষজন।

মুকেশ অম্বানীর ফাউন্ডেশন বিদ্ধস্ত এলাকাভুক্ত বিভিন্ন জায়গা ঘুরে ১৫০০০ আক্রান্ত পরিবারকে শুকনো খাবার, ওষুধ এবং অন্যান্য ত্রানসামগ্রী দিয়ে সাহায্যদান করছেন। এছাড়া বাড়ি ঘরহীন অনেক পরিবার আছে যাদের বাড়িঘর ভেঙে গিয়েছে। বন্যার জলে সব কিছু ভেসে গিয়েছে তাদেরকে আবার বাড়িঘর বানিয়ে দেওয়ার কথাও জানিয়েছেন রিলায়েন্স ফাউন্ডেশন।
#অগ্নিপুত্র