Press "Enter" to skip to content

৮ বছর ধরে সাধু সেজে ছিল আনিশ খান, হিন্দু মহিলাদের ঠকিয়ে ব্যাবসা চালাতো আনিশ খান।

উদারবাদী হিন্দুদের তথা হিন্দু সমাজকে বদনাম করার জন্য ষড়যন্ত্র নতুন বিষয় নয়। বহু সময় থেকে ভারতীয় কালচার, হিন্দু সমাজের উপর কালি লাগানোর প্রয়াস চলছে। এমনি একটা খবর মধ্যপ্রদেশে থেকে সামনে আসছে। যেখানে উন্মাদী আনিশ খান অপরাধ করার পর হিন্দুদের পবিত্র গেরুয়া বস্ত্র ধারণ করে। আনিশ খান হিন্দুদের বদনাম করার জন্য সাধুবেশ ধারণ করে।

মামলা মধ্যপ্রদেশের রাজগড়ের যেখানে আনিশ খান সাধু সেজে লুকিয়ে ছিল। আনিশ খান নিঃসন্তান মহিলাদের আশীর্বাদ দেওয়ার নাটক করতো। প্রায় ৮ বছর ধরে আনিশ খান, হিন্দু সাধু সেজে এই কারবার চালাতো। মিডিয়া সূত্রের খবর অনুযায়ী নির্বাচনের সময় পুলিশ পলাতক অপরাধীদের খোঁজে নেমেছিল। এসিপি প্রদীপ শর্মা বলেন, খোঁজ চলাকালীন আজ আনিশ খানকে ধরা হয়েছে। আনিশ খান নিজের নাম পরিবর্তন করে সাধু সেজে নিঃসন্তান মহিলাদের ঠকানোর কাজ করতো।

একইসাথে এর মাধ্যমে সে সাধু সমাজ ও হিন্দু কালচারের বদনাম করতো। এসিপি বলেন, আনিশ খান গেরুয়া ধারণ করে সাধু সেজে লুকিয়ে ছিল। চুরির মামলায় এই উন্মাদী পুলিশের খোঁজের তালিকায় ছিল। নির্বাচনের সময় বিজেপি শাসিত রাজ্যের পুলিশ হাই এলার্টে থাকে এবং পুরানো অপরাধীদের খোঁজে নেমে পড়ে। আর সেই প্রক্রিয়া চালু করতে গিয়েই কট্টরপন্থী আনিশ খান ধরা পড়ে। নিঃসন্তান মহিলাদের সন্তান প্রাপ্তি হওয়ার আশা দেখিয়ে আনিশ খান তদের ঠকাত।