Press "Enter" to skip to content

তিন তালাকের পর এবার মুসলিম পুরুষদের বহু বিবাহ বন্ধ করার ডাক, রেগে লাল কট্টরপন্থীরা।

দেশে মোদী সরকার আসার পর থেকে সাধারণ মানুষের জন্য একের পর এক পদক্ষেপ নিয়েই চলেছেন। তিনি মহিলাদের কথা দিয়েছিলেন তাদের কে সামাজিক অত্যাচার থেকে রক্ষা করবেন। সেই কথা অনুযায়ী তিনি তার দেওয়া কথা রাখেন। কিছুদিন আগেই মোদী সরকার প্রথা বিরুদ্ধে অধ্যাদেশ নিয়ে এসেছে। কেউ তালাক দিলেই তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যাবস্থা নিয়ে তাকে যথাযথ শাস্তি দেওয়া হবে এমনি নিয়ম করে দেওয়া হয়। এর ফলে মুসলিম মহিলাদের বেশ সুবিধা হয়েছে। আগে তাদের ভয়ে ভয়ে থাকতে হত কখন তার স্বামী তাকে তালাক দিয়ে দেয় এবং তাকে বাপের বাড়ি চলে যেতে হয়। কিন্তু এখন আর তাদের সেই ভয় নেই। এখন চাইলেই মুসলিম সম্প্রদায়ভুক্ত পুরুষরা মহিলাদের তালাক দিতে পারবেন না। এর জন্য ৬ মাসের আইন করে দেওয়া হয়েছে। মুসলিম মহিলারা বেশ উপকৃত হয়েছেন মোদীজির এই সিদ্ধান্তে।

এবার ইসরাত জাহান নামে মুসলিম সম্প্রদায়ভুক্ত এক মহিলা এবার দাবি জানালেন যে, তিন তালাককে বেআইনি করার পাশাপাশি এবার নিষিদ্ধ করা হোক মুসলিম সমাজে পুরুষদের প্রথাকে। ইনি হলেন সেই মহিলা যার করা তিন তালাক মামলা নিয়েই দেশজুড়ে শুরু হয়ে গিয়েছিল হৈচৈ করা আলোড়ন। এই দিন ইসরাত বলেন যে, এই বিষয়টিকে নিয়ে অযথা কেউ রাজনীতি করবেন না বা কেউ রাজনীতিরর রঙ লাগাবেন না। কারন সব রাজনৈতিক দলই বলেন যে তারা মহিলাদের নির্যাতনে তাদের পাশে আছেন। তাহলে এখন কেন তারা তাদের কথা রাখতে চাইছেন না।

তারা কেন বিল পাশ করতে দিচ্ছেন না? যখন কেন্দ্র সরকার এই বিলের পক্ষে রয়েছে তখন কেন অন্য দল গুলি এই বিল আটকানোর চেষ্টা করছেন।
এই বিষয়টিকে অনেকে ভোট ব্যাংক হিসাবেও দেখছেন আবার অনেকে ভাবছেন যে এটা মুসলিমদের সমস্যা তাদের জন্য বলে রাখি এই সমস্যাটি হল অসংখ্য মহিলাদের জীবনের সমস্যা। ইসরাত মনে করেন যে, মুসলিম পুরুষরা এত তালাক দেন তার কারন মুসলিম সমাজে বহুবিবাহ প্রথা চালু আছে বলে। এই বহুবিবাহ ব্যাবস্থার জন্যই আজ এত সমস্যা মুসলিম মহিলাদের জীবনে।

তিনি বলেন যে, একজন নারী কে বিয়ে করার পর কিছু বছর পর যখন তার উপর আর মনে বসে না, মন ভরে যায় তখন অন্য কাউ কে বিয়ে করার ইচ্ছা জাগে তাই কোনো কিছু কারন না থাকার সত্ত্বেও সেই মহিলাকে তালাক দিয়ে দেয়। তাই তিনি মনে করেন যে যদি একবার এই বহুবিবাহ প্রথাকে নিষিদ্ধ করা যায় তাহলে মুসলিম সম্প্রদায়ভুক্ত পুরুষদের মধ্যে তালাক দেওয়ার প্রবনতাও কমে যাবে। সেই জন্যই তিনি বহুবিবাহ প্রথাকে নিষিদ্ধ করার জন্য জোরদার দাবি তোলেন। যদিও এই বিষয়ের উপর মুসলিম সমাজের মানুষ একমত হলে কিছু ধার্মিক মানুষ এর বিরোধিতা করতে করতে শুরু করেছেন।
#অগ্নিপুত্র