Press "Enter" to skip to content

বড় খবর : ভারতীয় রেলে যাত্রীদের সুরক্ষার কথা ভেবে মোদী সরকার নিলেন এক যুগান্তকারী পদক্ষেপ । Bengali News

২০১৪ সালে ভারতের শাসন ক্ষমতায় আসে বিজেপি সরকার। আর ভারতবর্ষের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন শ্রদ্ধেয় নরেন্দ্র দামোদর দাস মোদী মহাশয়। উনি দেশের ক্ষমতা ভার নিজের হাতে নেওয়ার পর থেকেই দেশের জনগণের কথা ভেবে নিয়ে চলেছেন একের পর এক যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত। উনি সবচেয়ে বেশী গুরুত্ব দিয়ে আসছেন সাধারণ মানুষের সুরক্ষার দিকটা। আর সেই লক্ষ্যেই মোদীজি আরও একধাপ পা বাড়ালেন। উনি এবার আরও বেশি করে নিরাপত্তার চাদরে মুড়ে ফেললেন দেশের রেল ব্যবস্থা কে। কারণ এই রেলই হল সাধারণ মানুষের যাতায়াতের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম। তাই এবার রেলের সুরক্ষার উপর আরও জোর দিলেন। এবার সাধারণ মানুষ আগের থেকেও অনেক বেশি নিরাপদে রেল যাত্রা করতে পারবেন।

 

এবার বিশেষ ভাবে নজর দিয়েছেন যাত্রী নিরাপত্তার দিকটিতে। অর্থাৎ যাত্রীদের যাতে রেলে সফর করার সময় কোনোরকম অসুবিধার মধ্যে না পড়তে হয় সেই দিকেই বিশেষ করে নজর দিচ্ছে । গোটা কে সিসিটিভির ছত্ৰছায়ায় মুড়ে ফেলা হচ্ছে। সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে, এবার দেশের ছোটো বড় প্রতিটি রেল স্টেশনে আরও বেশি পরিমাণে সিসিটিভি ক্যামেরা লাগানো হবে শুধুমাত্র যাত্রী নিরাপত্তার কথা ভেবে।

রেল সূত্রে বিশেষ খবর এসেছে যে, দেশের মোট ৮২৪৪ টি রেলস্টেশনে বসানো হবে অত্যাধুনিক সিসিটিভি ক্যামেরা। সেই সাথে ৫৮ হাজার ২৭৬ টি রেল কোচে বসানো হবে উচ্চমানের সিসিটিভি ক্যামেরা। আর এই এত বিরাট পরিমাণে সিসিটিভি ক্যামেরা বসানোর জন্য ইতিমধ্যেই কেন্দ্র সরকারের তরফে ৩৭৭১ কোটি টাকা অনুমোদন করে দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে থেকে ৯৮৩ টি স্টেশনে ক্যামেরা বসানোর জন্য ৫০০ কোটি টাকা ব্যবহার করা হবে নির্ভয়া ফান্ড থেকে।

রেল আধিকারিকরা জানিয়েছেন যে, আমাদের এই পুরো প্রোজেক্টটাই করা হয়েছে রেল সুরক্ষার কথা ভেবে। আর এই জন্য জিআরপি এবং আরপিএফ একে অপরের সঙ্গে সমন্বয় রেখে কাজ করে চলেছেন। এই এত বেশি পরিমান ক্যামেরা লাগানোর জন্য রেল সুরক্ষা আগের থেকে অনেক বেশি পরিমাণ মজবুত হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
#অগ্নিপুত্র

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.