in ,

স্বদেশী উৎপাদনে ভারতের জয়জয়কার! ডিফেন্স সেক্টরে বহু মিলিয়ন ডলার সঞ্চয় করলো ভারত।

সুরক্ষা ব্যাবস্থার জন্য প্রয়োজনীয় স্বদেশী উৎপাদনের উপর মোদী সরকার যে জোর দিয়েছে তা এখন কাজে আসতে শুরু করেছে। সুরক্ষা ক্ষেত্রে উৎপাদন এখন দেশে উৎপন্ন হওয়ার জন্য বহু মিলিয়ন ডলার সঞ্চয় করতে সক্ষম হচ্ছে ভারত সরকার। হেভি ডিফেন্সের যেসমস্ত সামগ্রী আগে ভারত অন্য দেশে থেকে আমদানি করতো এখন ভারতের DRDO, রিলায়েন্স ডিফেন্সের মতো কোম্পানি সেই সমস্থ সামগ্রী ভারতেই উৎপাদন করছে। ২০১৬ সালে মোদী সরকার যে ডিফেন্স পলিসি তৈরি করেছে সেই অনুযায়ী সরকার ডিফেন্সেরর সামগ্রী উৎপাদনের জন্য মেক ইন ইন্ডিয়াকে প্রমোট করবে। ভারতকে ডিফেন্স হাব করার জন্য এবং স্বদেশী উৎপাদনকারীদের উৎসাহিত করার জন্য মোদী সরকার অফ সেট পলিসির উপরেও বেশকিছু পরিবর্তন এনেছে।

ড্রাফট পলিসির অনুযায়ী, মোদী সরকার ২০২৫ সাল পর্যন্ত মিলিটারি গুডস এবং সার্ভিসে ১.৭ ট্রিলিয়ন(১,৭০০,০০০ কোটি) টার্ন ওভারের দিকে টার্গেট রেখেছে। প্রাপ্ত রিপোর্ট অনুযায়ী ভারত বিগত বছরে প্রায় ১ লক্ষ কোটি বিদেশী টাকা খরচ হওয়া থেকে বাঁচিয়েছে। ভারতীয় নেভি আগে শর্ট রেঞ্জ মিসাইলের জন্য বিদেশ থেকে কেনার জন্য অপেক্ষা করতে, বর্তমানে ভারত নিজ দেশেই এই সমস্তকিছু উৎপাদন করছে।

DRDO এর অনুযায়ী ভারত শর্ট রেঞ্জ মিসাইলের খাতে যে বিদেশী অর্থ ব্যয় করতো তা বর্তমানে সঞ্চয় করা সম্ভব হয়েছে। প্রায় ৩০ হাজার কোটি টাকার বিদেশী মুদ্রা সঞ্চয় করা সম্ভব হয়েছে স্বদেশী উৎপাদনের জন্য। অন্যদিকে SR-SAMS এর উৎপাদনে ভারত ২০ হাজার কোটি টাকার বিদেশি মুদ্রা সঞ্চয় করতে সক্ষম হয়েছে।

বর্তমানে ভারত USD ৪০০ বিলিয়ন ডলার সঞ্চয় করতে সক্ষম হয়েছে। যা ভারতকে আন্তর্জাতিক দিক থেকে শক্তিশালী করার সাথে সাথে অর্থনৈতিক দিক থেকেও শক্তিশালী করছে। শুধু তাই নয়, ভারত সনির্ভর হওয়ার কারণে দেশে কর্মসংস্থানও লাগাতার বেড়ে চলেছে।

Leave a Reply

বিদেশের মাটিতে ভারতের অপমান! দুবাইতে গিয়ে ভারতকে অসহিষ্ণু বলে মন্তব্য করলেন রাহুল গান্ধী।

প্রধানমন্ত্রী মোদী ভারতের এই শহরে এয়ারপোর্ট নির্মাণের অনুমতি দেওয়ায়, ঘুম উড়লো চীন সরকারের।