Press "Enter" to skip to content

বেরিয়ে এলো আসল সত্য! ঠিক এইভাবেই বিশ্বাসঘাতকতা করা হয়েছিল নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর সাথে। Bengali News

ভারত ১৯৪৭ সালে তৈরি হওয়া কোনো দেশ নয়, এটা বিশ্বের সবথেকে প্রাচীন ও মহান দেশ। হিন্দুদের একতার অভাবে ইংরেজরা কবজা করেনিয়েছিল। এখনো অবধি যদি কাউকে জিজ্ঞাসা করা হয় ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রীর নাম কি? উত্তরে আসে জওহরলাল নেহেরু। কিন্তু এবার দেশে সত্যের উদঘাটন হয়েছে, একটা পরিবারে(গান্ধী/নেহেরু) পা চাটা থেকে বেরিয়ে এসে দেশবাসী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর হাত ধরে ভারত মাতার সুপুত্র সুভাষচন্দ্র বসুকে তার আসল স্থান ও মর্যাদা ফিরিয়ে দিয়েছে। দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী ছিলেন সুভাষচন্দ্র বসু, বিশ্বের অনেক দেশ এটাকে মান্যতা দিয়েছিল। ৩০ ডিসেম্বর ১৯৪৩ সালে আন্দামান নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ স্বাধীনতা লাভ করে যারপর জার্মানি, জাপান সহ ১১ দেশের মান্যতা সহ ভারতের প্রথম সরকার তৈরি হয়। যার প্রধানমন্ত্রী, রক্ষা মন্ত্রী ও অর্থমন্ত্রী পদে ছিলেন সুভাষচন্দ্র বসু। জানিয়ে দি, আজাদ হিন্দ সরকারের নিজস্ব ব্যাঙ্ক, সূচনাতন্ত্র ও কিছুদেশে ভারতের রাজদূত ছিল।

আরো পড়ুন – ” ধন্যবাদ হিন্দুত্ববাদকে, যার জন্য ভারতে আতঙ্কবাদ প্রবেশ করতে পারেনি” – চীন মিডিয়া।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের প্রাক্কলে আজাদ হিন্দ সরকার ইংরেজদের বিরুদ্ধে লড়াইতে নামে এবং ৩০০০০ এর মত ইংরেজ ও ৩০০০ এর মত আমেরিকার সৈনিককে মেরে ফেলে। আজাদ হিন্দ সরকার ও ফৌজের লোকপ্রিয়তা বেড়েই চলেছিল। অন্যদিকে ইংরেজদের জন্য কাজ করা ভারতীয় সৈনিকদের মধ্যেও বিদ্রোহ শুরু হয়ে গেছিল যেকোনো সময় পূর্নবিদ্রোহ শুরু হতে পারতো। এইরকম অবস্থায় ভারতে শাসন করা ইংরেজদের জন্য কঠিন হয়ে উঠেছিল।

Gandhiji with Netaji

ভারতে কবজা করে রাখার জন্য ইংরেজদের কাছে সৈনিক ও পুলিশের কম পড়তে শুরু করেছিল। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে এমনিতেই তাদের কোমর ভেঙে গেছিল। এই প্রমুখ কারণেই ইংরেজরা ভারতের দায়িত্ব তাদের গোলামের হাতে দিয়ে ভারত ছেড়ে চলে যায়। এরপর সেই তথাকথিত স্বাধীনতার পর ইংরেজরা সুভাষচন্দ্র বসুকে খোঁজার জন্য বিভিন্ন দেশে জাসুস রেখেছিল। ইংরেজরা তো নেতাজিকে খুঁজে পাননি কিন্তু তারা (নেহেরু/গান্ধী পরিবার) এর সাথে মিলে নেতাজির সমস্ত ইতিহাসকে শেষ করতে শুরু করে দেয়।

with Netaji cap

এই কারণে আজকের ইতিহাস পাঠ্যপুস্তকে নেতাজি সেভাবে গুরুত্ব পাননি। জানিয়ে দি কংগ্রেস ইংরেজদের তৈরি একটা পার্টি ছিল, ভারতের ভেতরের বিদ্রোহকে নিয়ন্ত্রণ করতে এই পার্টি তৈরি করা হয়েছিল। আজ ভারতবাসী বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর প্রতি কৃতজ্ঞ, কারণ মোদী দেশের আসল মহানায়ক সুভাষচন্দ্র বসুকে তার যোগ্য সন্মান দিয়েছেন। এখন আরো অনেক বড়ো বড়ো পর্দাফাঁস বাকি রয়েছে। এখন যদি কেউ আপনাকে জিজ্ঞাসা করে ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী কে ছিলেন তাহলে অবশ্যই বামপন্থী ও কংগ্রেসদের লেখা পাঠ্যপুস্তকের মিথ্যা ইতিহাস থেকে বেরিয়ে এসে সগর্বে বলবেন- ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী ছিলেন নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু। ভারতমাতা কি জয়- জয় হিন্দ।

পাঠকদের জন্য প্রশ্নঃ ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী কে ছিলেন?