Press "Enter" to skip to content

আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পে মূগ্ধ বিশ্ব! নোবেল শান্তি’তে মনোনীত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নাম!

দেশের প্রধানমন্ত্রী হবার পর থেকে একের পর এক যুগান্তকারী কাজ করে চলেছেন নরেন্দ্র মোদী । তাই ইতিমধ্যেই তার মুকুটে একের পর এক পালক যোগ হয়েছে। তবে এবার আবার নতুন করে একটা গুরুত্বপূর্ণ পালক যুক্ত হতে চলেছে মোদীজির মুকুটে। এবার প্রধানমন্ত্রী মোদীজির নাম নমিনেট করা হয়েছে নোবেল পুরস্কারের জন্য। তার করা প্রকল্প “আয়ুষ্মান ভারত” এর জন্যই তার নাম নমিনেট করা হয়েছে। তামিলিসাই সৌন্দরাজন যিনি তামিলনাড়ুর বিজেপি প্রেসিডেন্ট তিনি প্রধানমন্ত্রীর নাম নমিনেট করেছেন ের জন্য। সেই বিজেপি নেত্রী জানিয়েছেন যে, তিনি প্রধানমন্ত্রীর নাম মনোনীত করেছেন ের জন্য। কারন মোদীজি লঞ্চ করেছেন বিশ্বের সবচেয়ে বড় হেল্থ স্কিম। যদিও এই প্রকল্প থেকে পশ্চিমবঙ্গ ও কর্ণাটকের মানুষ বঞ্চিত হবেন কারণ এই রাজ্যের সরকার কেন্দ্রকে এই প্রকল্প লাগু করতে দেয়নি। এই প্রকল্পের মাধ্যমে সরকার প্রতি বছর মধ্যবিত্ত ও নিন্ম মধ্যবিত্ত মানুষের জন্য ৫ লক্ষ টাকা খরচ করবে এতে নিজের পকেট থেকে স্বাস্থ্যর জন্য খরচ না করতে হয়।

এক বিজ্ঞপ্তিতে জানা গিয়েছে যে, শুধু তিনি একাই নন তার স্বামীও মোদীজির নাম নমিনেট করেছেন এই ব্যাপারে। তার স্বামী ড. পি সৌন্দরাজন নেফ্রোলজি বিভাগের অধ্যাপক একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে। সেই বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে যে, “আয়ুষ্মান ভারত” হল মোদীজির এমন একটা নজিরবিহীন প্রজেক্ট যেখানে উপকৃত হবেন লক্ষাধিক মানুষ। শুধু তাই নয় এই প্রজেক্টের ফলে বদলে যাবে লক্ষ্য লক্ষ্য পিছিয়ে পরা মানুষের জীবন। পশ্চিমবঙ্গ ও কর্ণাটক বাদে সমস্থ রাজ্যের মানুষ পাবেন এই বিশেষ লাভ।

নোবেল প্রাইজের জন্য নমিনেশন জমা দেওয়া শুরু হয় প্রত্যেক বছর সেপ্টেম্বর মাসে। এবং এই বছর এর শেষ তারিক দেওয়া হয়েছে ৩১ শে জানুয়ারি ২০১৯ সাল। যদি প্রধানমন্ত্রী চান তাহলে সাংসদ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য অধ্যাপকরাও নমিনেট করতে পারেন এমনটাই বলা হয়েছে সেই বিজ্ঞপ্তিতে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে যে, প্রধানমন্ত্রীর এই জনকল্যাণমুখী প্রকল্প গুলিতে অনেক মানুষ উপকার হয়েছে। এই প্রোজেক্ট গুলির মধ্যে দিয়ে উপকৃত হওয়া মানুষের সংখ্যা মেক্সিকো, কানাডা
ও আমেরিকার মোট জনসংখ্যার থেকেও বেশি বলে জানা যাচ্ছে। তার জন্যই প্রধানমন্ত্রীর নাম নমিনেট করা হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে।
#অগ্নিপুত্র