বড় খবর: মোদীর কূটনীতির কাছে হার মানলো আমেরিকা! ইরান থেকে ভারতে তেল আমদানির উপর ছাড় পাবে ভারত সরকার।

বাংলা খবর : প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কূটনীতির কাছে হার মানতে বাধ্য হলো আমেরিকা !

নরেন্দ্র মোদী যখন গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন তখন এক ইন্টারভিউতে উনি বলেছিলেন কেন্দ্রের কংগ্রেসে সরকারের বিদেশ নীতি ঠিক নেই। এরপর সাংবাদিক বলেছিলেন সরকারকে আন্তর্জাতিক চাপের বিষয়েও তো চিন্তা করতে হয়। এর উত্তরে নরেন্দ্র মোদী তখন যা বলেছিলেন বর্তমানে ঠিক সেভাবেই দেশ চালাচ্ছেন। নরেন্দ্র মোদী বলেছিলেন ভারত ১৩০ কোটির দেশ আন্তর্জাতিক চাপ সৃষ্টি করার ক্ষমতা ভারতের আছে, ভারতের উপর চাপ সৃষ্টি করার ক্ষমতা কোনো দেশের নেই। জানিয়ে দি আমেরিকা নভেম্বর মাস থেকে ইরান থেকে তেল আমদানির উপর প্রতিবন্ধকতা লাগানো ঘোষণা করেছিল। আমেরিকা জানিয়েছিল ২০১৮ এর নভেম্বর এর একটা নির্দিষ্ট তারিখ থেকে কোনো দেশ ইরান থেকে তেল আমদানি করতে পারবে না।

তবে এখন একটা বড়ো খবর সামনে আসছে। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী,  ইরান থেকে কাঁচা তেল আমদানির উপর যে প্রতিবন্ধকতা আমেরিকা লাগিয়েছিল তা ভারতের উপর থেকে সরিয়ে নিয়েছে। অর্থাৎ ভারতের উপর কোনোরকম নিষেধাজ্ঞা লাগবে না আমেরিকা। এর আধিকারিক ঘোষণা আগামী কিছুদিনের মধ্যেই করা হবে বলে জানা যাচ্ছে। শুধু এই নয় ভারত, ইরানে যে চা বাহার পোর্টের উপর কাজ করছে সেখানেও আমেরিকা সহযোগিতা করবে।

লক্ষনীয় বিষয় এই যে ভারত, ইরান থেকে যে তেল আমদানি করে সেটা খুবই উচ্চমানের হয় এবং একইসাথে ইরান ভারতকে অনেক বিষয়ে ছাড় প্রদান করে। উদাহরণসরূপ ইরান কিছুদিন আগেই তেল আমদানির জন্য শিপমেন্ট এর পুরো খরচ নিজে বহন করবে বলে ভারতকে জানিয়েছিল। জানিয়ে দি এর আগেও রুশের থেকে S-400 চুক্তির সময় আমেরিকা ভারতকে নিষেধাজ্ঞা লাগানোর হুমকি দিয়েছিল কিন্তু কোনোটাই লাগু করেনি।

আসলে পুরোটাই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও উনার টীমের কূটনৈতিক পরিকল্পনার ফল। প্রধানমন্ত্রী মোদী এমনভাবে দেশের বিদেশনীতি ও কূটনীতি পরিচালনা করছে যাতে বাকি দেশ কোনোভাবেই ভারতের উপর চাপ সৃষ্টি করার ক্ষমতা না পায় উল্টে ভারত অন্যান দেশের উপর আন্তর্জাতিক চাপ সৃষ্টি করতে পারে।

you're currently offline

Open

Close