Press "Enter" to skip to content

চীন ও শিকাগোর পর এবার দিল্লীতেও বাতিল মমতার অনুষ্ঠান।

একদিকে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী যখন নরেন্দ্র মোদীকে কেন্দ্র থেকে সরানোর জন্য সকল বিরোধীদের ডাক দিয়েছেন।তখন ফের আরও একবার ধাক্কা খেতে হলো রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। আবার একবার তার অনুষ্ঠান বাতিল করল আয়োজক কতৃপক্ষ। আগামী ১ ই অগাস্ট দিল্লির খ্যাতনামা সেন্ট স্টিফেন্স কলেজে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেবার কথা ছিল মূখ্যমন্ত্রী মমতার। কিন্তু নানান নিয়মকানুনের কথা মাথায় রেখে কলেজ কতৃপক্ষ সেই কর্মসূচি বাতিল করেছে। তবে এই প্রথম নয়, গত কয়েক মাস ধরে মূখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বেশ কয়েকটি কর্মসূচি বতিল হয়ে গিয়েছে। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল চিন সফর। গত মাসে তার চিন সফরে যাওয়ার কথা থাকলেও সেটা বাতিল করে দেওয়া হয় চিনা সরকারের তরফ থেকে।

তারা জানান যে, তারা এখনও ঠিক করতে পারেন নি যে কোন প্রতিনিধি মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করবেন। তাই এই সফর তারা বাতিল করতে বাধ্য হয়। যদিও রাজ্য সরকার বিদেশমন্ত্রকের উপর অভিযোগ আনেন যে, বিদেশমন্ত্রক মমতার সফর নিয়ে কোনো আগ্রহ দেখায় নি তাই এই সফর বাতিল হয়েছে। পরে অবশ্য সুষমা স্বরাজের দফতর সেই অভিযোগ খারিজ করে দেন।

এর পর তার চিকাগো সফরে যাওয়ার কথা ছিল তৃণমূল নেত্রী মমতার, কিন্তু সেই সফরও বাতিল হয়ে যায়। এবার স্বামী বিবেকানন্দের চিকাগো বক্তৃতার ১৫০ বছর পূর্তি হয়। সেই উপলক্ষ্যে সেখানে এই বছরে অগাস্টের শেষে একটি অনুষ্ঠান করবেন বলে জানা গেছিলো। তাই সেখানে মুখ্যমন্ত্রী মমতার বক্তব্য রাখার কথা থাকলেও পরে সেটা বাতিল হয়ে যায়। অনেকের দাবি প্রবাসী বাঙালিদের একাংশের মতবিরোধের জন্যই মুখ্যমন্ত্রীর সেখানকার সফর বাতিল করে দেন কতৃপক্ষ। তবে রামকৃষ্ণমিশনের এক সন্ন্যাসীর অকাল প্রয়াণে কারন দেখিয়েই উদ্যোক্তারা সেই সফর বাতিল করেন।

এবার দিল্লির সেন্ট স্টিফেনস কলেজের অনুষ্ঠান বাতিল হল। তারা জানিয়েছেন যে প্রোটোকলের বাধ্যবাধকতায় এই অনুষ্ঠান তারা বাতিল করতে বাধ্য হয়েছেন। পরে এই জন্য কলেজ কতৃপক্ষ ক্ষমা চেয়ে নেয় তার কাছে। একে একে এই ভাবে একের পর এক সফর বাতিল হচ্ছে মুখ্যমন্ত্রীর আর তাতে ক্রুদ্ধ তৃণমূলের কার্যকর্তারা। মমতা ব্যানার্জীর অনুষ্ঠান সভা বাতিল হওয়ার জন্য বিজেপিকে দায়ী করেছে তৃণমূলের একাংশ।
#অগ্নিপুত্র