Press "Enter" to skip to content

ভিডিও: তৃণমূল সাংসদ নুসরত জাহান “ঈশ্বর” এর নামে শপথ নিলেন এবং বললেন “বন্দে মাতরম”

সদ্য তৃণমূল কংগ্রেস পার্টি থেকে নির্বাচনে দাঁড়িয়ে লোকসভার সাংসদ নির্বাচিত হয়েছে নুসরত জাহান-রুহি জৈন। এতদিন পর্যন্ত শুধুমাত্র টলিউডের অভিনেত্রী হিসেবে পরিচিত ছিলেন নুসরত জাহান। আর এখন সদ্য রাজনীতিতে পা দিয়ে আজ লোকসভার সদস্য হিসেবে শপদ নিয়েছেন তিনি। ঈশ্বরের নামে প্রতিজ্ঞা নিয়ে নূসরত শুরু করেছিলেন শপদ গ্রহণ এবং বন্দে মাতরম, জয় হিন্দ, জয় বাংলা বলে নিজের শপদ গ্রহণ শেষ করেন। যা নিয়ে এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় চর্চা শুরু হয়ে গেছে।

লক্ষণীয় বিষয় এই যে, মাত্র কয়েকদিন আগেই দেশের সব বড় বড় চৌকিদারদের মাঝেই সংসদে লজ্জাজনক মন্তব্য করেছিলেন শফিকুর রহমান। ১৮ ই জুন সমাজবাদী পার্টির নেতা শফিকুর রহমান চৌকিদারদের মাঝেই সদনের বলেছিলেন বন্দে মাতরম ইসলামের বিরুদ্ধে। ১৭ তম লোকসভায় শপদ গ্রহণের পর শফিকুর রহমান এমন মন্তব্য করেছিলেন। বাকি সাংসদরা যখন জয় হিন্দ, জয় শ্রী রাম, বন্দে মাতরম ইত্যাদি ধর্মীয় ও দেশপ্রেম মূলক শ্লোগান দিচ্ছিলেন তখন শফিকুর রহমান বন্দে মাতরমকে ইসলাম বিরোধী বলেছিলেন।

অন্যদিকে নুসরত জাহান যিনি নিজের বিয়ের কারণে শপদ গ্রহণ করতে পারেননি উনি আজ শপদ গ্রহণ করেছন। ব্যাবসায়ী নিখিল জৈনের সাথে বিয়ে করতে নুসরত জাহান তুর্কিতে পৌঁছেছিলেন। তাই উনাকে আজ শপদ গ্রহণ করতে হয়েছে। আর আজ শপদ গ্রহণের সময় নুসরত বন্দে মাতরম বলেন। জানিয়ে দি, আগের দিন শপদ গ্রহনে না আসার জন্য অনেকে উনাকে দ্বায়িত্বহীন MP বলে ট্রল করেছিল। এর জন্য বসিরহাটের নতুন MP চর্চার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন। তবে এই প্রথম নয়, এর আগেও কুখ্যাত পার্ক স্ট্রিট ধর্ষণ কাণ্ডে নুসরতের নাম সামনে এসেছিল। শ্রী সময় মূল অভিযুক্ত কাদের খান নুসরতের বয়ফ্রেন্ড ছিল এবং কাদেরকে নুসরত পালাতে সাহায্য করেছিল বলে দাবি উঠেছিল।

you're currently offline