ভোট একমাত্র ভারতীয়রাই দেবে! শুরু হলো ভোটার লিস্ট থেকে অবৈধ বাংলাদেশী নাম মুছে ফেলার পক্রিয়া।

সরকার বাংলাদেশীদের বিরুদ্ধে ক্রিয়াকলাপ শুরু করে দিয়েছে। এতদিন পর্যন্ত ভারতের রাজনীতিতে অবৈধ বাংলাদেশীরা প্রভাব বিস্তার করতো। দেশ ভারতীয়দের হলেও শাসন ক্ষমতা কে নিয়ন্ত্রণ করবে তার নির্ণয়ের ক্ষমতা ছিল অবৈধ বাংলাদেশীদের। কিন্তু মোদী সরকার এখন এই অবৈধ বাংলাদেশী অনুপ্রবেশকারীদের ভোট দেওয়ার ক্ষমতা বাতিল করার পক্রিয়া শুরু করেছে। অসমে NRC হওয়ার পরই অবৈধ বাংলাদেশীদের নিয়ে ইস্যু খুব উত্থাল হয়েছিল। মোদী সরকার তখনই জানিয়েছিল বাংলাদেশীদের ভারতে থাকতে দেওয়া হবে না তাদেরকে যথাযত পক্রিয়ার মাধ্যমে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হবে। বিজেপির বড়ো নেতা রাম মাধব জানিয়েছিলেন যে প্রথমে এই অবৈধ বাংলাদেশীদের ভোটার লিস্ট থেকে বাতিল করে তারপর বাংলাদেশের সরকারের সাথে কথাবার্তা শুরু করা হবে। সূত্রের খবর এখন অবৈধ বাংলাদেশীদের নাম ভোটার লিস্ট থেকে বের করার পক্রিয়া শুরু হয়েছে।

শুক্রুবারদিন দেশের  উড়িষ্যা রাজ্য থেকে এই পক্রিয়া শুরু করা হয়েছে যেখানে নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে। খুব তাড়াতাড়ি হাজার, লক্ষ অবৈধ বাংলাদেশিদের নাম ভোটার লিস্ট থেকে বের করে দেওয়া হবে। প্রত্যেক রাজ্যের নির্বাচন কমিশন এই সমস্থ কাজগুলি দেখাশোনা করে। উড়িষ্যার নিতবাচন কমিশন এই কাজ শুরু করে দিয়েছে। নির্বাচন কমিশন রাজ্যগুলিতে নিরপেক্ষভাবে ভোট করানোর জন্য প্রতিবদ্ধ থাকে।

এখন এই বিষয়ে খেয়াল রাখা হবে যে দেশে ভোটের অধিকার শুধুমাত্র ভারতীয়দের রয়েছে। অন্য কারোর নয়। নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে যেসব অবৈধ নাম রাজনীতির অপব্যবহারের কারণে লিস্টে চলে এসেছে সেই সমস্থ নামক মুছে ফেলার জন্য যাচাইও করা হচ্ছে। এখন এই পক্রিয়া শুধু উড়িষ্যাতে শুরু হয়েছে ধীরে ধীরে অসম সহ অন্যান্য রাজ্যগুলিতেই শুরু করা হবে। এটা নিশ্চিত যে ২০১৯ লোকসভা পর্যন্ত সরকার যদি এইভাবে কড়া হাতে শাসন নিয়ন্ত্রণ করে তাহলে বহু কোটি বাংলাদেশী ভোট প্রদান করতে পারবে না।

অবৈধ বাংলাদেশীদের নাম এইভাবে মুছে যেতে থাকলে কিছু রাজনৈতিক দলের অস্থিত বিপন্ন হয়ে পড়বে বলে মনে করছে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। কারণ কিছু রাজনৈতিক দল এই অবৈধ বাংলাদেশীদের ভোটার হিসেবে কাজে লাগানোর সাথে সাথে নিজেদের পোষা গুন্ডা হিসেবেও কাজে লাগায়। অসমে NRC শুরু হওয়ার পর সমস্থ বিরোধীরা মমতা ব্যানার্জীর নেতৃত্বে এক হয়ে মোদী সরকারের বিরোধিতা শুরু করেছিল যদিও সরকার কোনো তোয়াক্কা না করেই কাজ এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ঘোষণা শুনিয়ে দিয়েছে।

Open

Close