Press "Enter" to skip to content

তিহার জেলে ইয়াসিন মালিক আর ক্রিশ্চিয়ান মিশেলের নতুন প্রতিবেশী হলেন চিদিম্বরম

INX মিডিয়া দুর্নীতি মামলায় প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী তথা কংগ্রেসের দিগগজ নেতা পি চিদম্বরম এখন তিহার জেলে আছেন। দিল্লী হাইকোর্টের তরফ থেকে প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীকে ১৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত হেফাজতে পাঠানো হয়েছে। পি চিদম্বরম তিহারে ৭ নম্বর জেলে বন্দি। যদি আদালতের আদেশের পর ওনাকে আলাদা করে সেল দেওয়া হয়েছে। তিহারের এই জেল নম্বর সাতের আলাদা ইতিহাস আছে, যার জন্য এই জেল খুব গুরুত্ব বহন করে।

এখনো পর্যন্ত এই সেলে অনেক বড়বড় মানুষ রাত কাটিয়েছে, যার মধ্যে পি চিদম্বরমের ছেলে কার্তি চিদম্বরমের নামও আছে। কার্তি চিদম্বরম এই মামলাতেই ২৩ দিন জেলে ছিল। তাঁকে ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ সালে গ্রেফতার করা হয়েছিল, পরে উনি জামিন পেয়ে যান। এই জেলে ইয়াসিন মালিক, ক্রিশ্চিয়ান মিশেল প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীর প্রতিবেশী রুপে থাকবেন। চিদম্বরম এর নতুন ঠিকানা জেল নম্বর ৭, ওয়ার্ড নম্বর ২ আর সেল নম্বর ১৫।

দিল্লি আদালত কাল প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদাম্বরমকে আইএনএক্স মামলায় তিহার কারাগারে পাঠিয়েছে। যেখানে চিদাম্বরমকে তিহার ৭ নম্বর কারাগারের বিশেষ কক্ষে রাখা হয়েছে। যেখানে উনাকে সাধারণ বন্দীদের মতো মসুর, রুটি এবং শাকসব্জী খেতে দেওয়া হবে। তিহাড় জেলের মহাপরিচালক সন্দীপ গোয়েল বলেছেন, পি চিদাম্বরমকে ৭ নম্বর কারাগারে এবং পৃথক কক্ষে রাখা হবে এবং রুটি, মসুর ও শাকসবজি দেওয়া হবে। এ ছাড়া চিদাম্বরমকে ওয়েস্টার্ন টয়লেট ব্যাবহার করতে দেওয়া হবে। আদালত চিদাম্বরমকে ওয়েস্টার্ন টয়লেট ব্যাবহার করতে ছাড় দিয়েছে।

জানিয়ে দি, তিহার পৌঁছানোর আগে পি চিদাম্বরম বিশেষ আদালতে কিছু সুপারিশ করেছিলেন। তিনি আদালত থেকে তিহার জেলের কারাগার প্রাঙ্গণে পৃথক বিশেষ সেল, ওয়েস্টার্ন টয়লেট, চশমা, ওষুধ এবং অতিরিক্ত সুরক্ষার দাবি করেছিলেন। যা আদালত মেনে নিয়েছে। আইএনএক্স মিডিয়া মামলায় রাউস অ্যাভিনিউ আদালত বৃহস্পতিবার প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদাম্বরমকে আগাম জামিনের আবেদন থেকে বরখাস্ত করে এবং ১৯ সেপ্টেম্বরের মধ্যে তাকে সিবিআইয়ের বিচারিক হেফাজতে নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে।