Press "Enter" to skip to content

“মোদী আমাদের দেশে সেনা ঢুকিয়ে মেরে গেল, কিন্ত কোনো ১ টাও দেশ আমাদের পাশে নেই”: পাকিস্থানি সাংবাদিক।

আজ ভারত একটা মজবুত দেশ হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে। স্থিতি এমন যে ইজরায়েল এবং আমেরিকার পর ভারত এমন দেশে পরিণত হয়েছে যা শত্রুকে ঘরে ঢুকে মারে। ভারতের ছবি সম্পূর্ণভাবে বদলে গেছে। এই কারণে যখন পাকিস্থানের উপর এয়ার স্ট্রাইক করা হয়েছে তখন কোনো দেশ ভারতের বিরুদ্ধে কথা বলার সাহস পায়নি। এমনকি কোনো দেশ ইসলামের নামে পাকিস্থানের সমর্থনেও দাঁড়ায়নি।

পাকিস্থানের আর্থিক অবস্থা সম্পূর্ণভাবে ভেঙে পড়েছে। পাকিস্থানের সমর্থনে সৌদি আরব বা অন্য কোনো ইসলামিক মাঠে নামেনি। সৌদি আরব একবার পাকিস্থানের দালালি করতে চেষ্টাও করেছিল কিন্তু ভারত সরকার একশন মুডে রয়েছে দেখে পেছনে সরে যায়। আর এখন পাকিস্থানের সাংবাদিকরা এই নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় বাংলাদেশ ও অন্য ইসলামিক দেশের কট্টরপন্থীরা ধর্মের নামে পাকিস্থানকে সমর্থন জানিয়েছে কিন্তু কোনো দেশ অধিকারিকভাবে পাকিস্থানের সমর্থন জানাতে পারেনি।

এর একমাত্র কারণ মোদীর কূটনীতি। জানিয়ে দি, ইসলামিক দেশগুলি ২ বছর আগে ইসলামিক সেনা তৈরি করেছিল। এই সেনার নেতৃত্বে রয়েছে পাকিস্থানের এক সেনা মেজর। সেই সময় বলা হয়েছিল যে কোনো একটা ইসলামিক দেশে আক্রমন করার অর্থ হবে সব ইসলামিক দেশে আক্রমন করে। অর্থাৎ সোজা কথায় একে অপরের পাশে দাঁড়ানোর কথা বলা হয়েছিল। কিন্তু মোদীর কূটনৈতিক চালে পাকিস্থান পুরো অসহায় হয়ে পড়েছে।

উপরে একটা ভিডিও দেওয়া হয়েছে। সেখানে পাকিস্থানের সাংবাদিক বলছেন যে মোদী আমাদের দেশে সেনা ঢুকিয়ে মেরে গেল কিন্তু কোনো দেশ আমাদের পাশে দাঁড়ায়নি। পাক সাংবাদিক বলছেন যে এর কারণ মোদীর কূটনীতি ও পলিসি, আজ ভারতের কূটনৈতিক চাপে পাকিস্থান অসহায় হয়ে পড়েছে।

11 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.