Press "Enter" to skip to content

ভারতের ২১টি বিরোধী দল আমাদের সাথে, মোদীর যায়গায় তাঁরা ক্ষমতায় আসলে আমাদের জন্য মঙ্গলঃ পাকিস্তান

পাকিস্তানি মিডিয়ায় ভারতের ওই ২১ টি রাজনৈতিক দল এখন ট্রেন্ড করছে, যারা পুলওয়ামা হামলার পর ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিরোধিতা করেছিল। আপনাদের হয়ত মনে আছে, ভারতের সেই ২১ টি বিরোধী রাজনৈতিক দলকে যারা পুলওয়ামা হামলার পর মোদীজির নেওয়া পদক্ষেপের বিরুদ্ধে ছিল।

এখন সে মোদী এবং ভারত বিরোধী ২১টি ভারতের রাজনৈতিক দল পাকিস্তানি মিডিয়ার শিরোনামে। আর অনেক পাকিস্তানি এক্সপার্ট এবার ওই পার্টির প্রশংসা করছে। পাকিস্তানি মিডিয়ায় বসে এক পাকিস্তানি এক্সপার্ট কি বলছে, সেটা আপনার মন দিয়ে শোনা উচিৎ।

পাকিস্তানি ওই এক্সপার্ট বলছে, ভারতের ২১টি রাজনৈতিক দল মোদীর বিরুদ্ধে, আর তাঁরা আমাদের সাথে আছে। ওই এক্সপার্ট এটাও বলছে যে, ভারতে এখন নির্বাচন সামনে। আর সেই নির্বাচনে এই ২১টি রাজনৈতিক দল জিতে যদি সরকার বানায়, তাহলে আমাদের জন্য সেটা খুব মঙ্গল হবে।

এটাই প্রথমবার না যে, পাকিস্তানি মিডিয়া মোদী বিরোধী শক্তিকে হাতিয়ার করে তাঁদের মনস্কামনা পূরণ করতে চায়। এর আগেও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী এবং দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিবালের বক্তব্যকে হাতিয়ার করে গোটা বিশ্বের সামনে ভারতকে দোষী সাব্যস্ত করতে চেয়েছে পাকিস্তান।

আর করবেই বা না কেন? পুলওয়ামা হামলার পর মমতা ব্যানার্জী তো পাকিস্তানকে পুরো ক্লিনচিট দিয়েই দিয়েছিল। আর ভারতের এয়ার স্ট্রাইকের পর এই মমতা ব্যানার্জীই ভারতীয় বায়ুসেনার উপর সন্দেহ করে এয়ার স্ট্রাইকের প্রমাণ চেয়েছেন।

আর ওনার রাস্তায় হেঁটে কংগ্রেস থেকে তৃণমূলে যোগ দেওয়া সাংসদ মৌসম বেনজির নূর এবং তৃণমূলের বিধায়ক কাকলি ঘোষ দস্তিদার বলে দিয়েছেন যে, ভারত কোন এয়ার স্ট্রাইক করেইনি! আর এই ভারত বিরোধী শক্তি গুলোকেই হাতিয়ার করে পাকিস্তান নিজেদের মনস্কামন পূরণ করতে চাইছে।

পাকিস্তান চায় ভারতে যেন আর মোদী সরকার না হোক। কারণ মোদী সরকার আসলেই পাকিস্তানের সর্বনাশ। ভারতে পাকিস্তান হামলা করলেই, মোদী সরকার তাঁর বদলা নেবে। আর মোদী সরকার না থাকলে, ভারতে হামলা করে শয়ে শয়ে মানুষ মেরে দিলেও সরকার কোন বদলা নেবেনা।