Press "Enter" to skip to content

জারি হলো পাকিস্তানের আর্থিক সার্ভে! ভারতের বিদেশী মুদ্রা ভান্ডার পাকিস্তানের থেকে ২৪ গুন বেশি।

ইমরান খানের সরকার পাকিস্থানে প্রথম পূর্নকালীন বাজেট পেশ করেছে। ইমরান খানের পার্টি তেহেরিক-এ- ইনসাফের নেতৃত্বে এটা প্রথম বাজেট। ইমরান খানের সরকারের অধীন থাকা পাকিস্তানের অর্থমন্ত্রী মঙ্গলবারদিন প্রথম বাজেট পেশ করে দিয়েছেন। পাকিস্তানের বাজেট পেশ হওয়ার ঠিক ১ দিন আগে ২০১৮-১৯ এর আর্থিক সার্ভে সামনে এসেছে। পাকিস্তানে জারি হওয়া আর্থিক সার্ভের হিসাব অনুযায়ী পাকিস্তানের GDP ৩.৩ শতাংশ হারে বৃদ্ধি হচ্ছে। এটা বিগত ৯ বছরের সবথেকে নিন্মতম স্তর।

একদিকে পাকিস্তান খাদ্য সঙ্কট ও আর্থিক সঙ্কটে ভুগছে তখন ভারতের GDP ৬.৮ শতাংশ হিসেবে চলছে। ভারতের অর্থ ব্যাবস্থা পাকিস্তানের থেকে অনেক এগিয়ে। ভারতের অর্থ ব্যাবস্থা পাকিস্তানের থেকে প্রায় ৯ গুন বড়। পাকিস্তান পুরোপুরি ঋণে ডুবে গেছে। বলা হচ্ছে পাকিস্তানের বাজেটের ৪২% ঋণ মেটাতেই চলে যাবে। অন্যদিকে ভারতের ঋণ পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। ভারত নিজের বাজেটের ২০% জনকল্যাণ মূলক কাজে ব্যাবহার করতে পারে। অন্যদিকে পাকিস্তান তার বাজেটের মাত্র ১০% জনগণের সেবার জন্য কাজে লাগাতে পারে।

শুধু এই নয়, ভিখারী পাকিস্তান নিজের বাজেটের সবথেকে বেশি খরচ সুরক্ষা ক্ষেত্রে করে। অবশ্য এর মধ্যে থেকে বহু টাকা আতঙ্কবাদী পালন করতে ব্যয় হয়ে যায়। যদি বর্তমান পরিস্থিতিতে দুই দেশের বিদেশী মুদ্রা ভান্ডারের তুলনা করা হয় তবে পার্থক্য আরো গভীর হয়ে যায়। ভারতের মুদ্রা ভান্ডার ৪২০ বিলিয়ন ডলার তো অন্যদিকে পাকিস্তানের মুদ্রাভান্ডার মাত্র ১৭.৪ বিলিয়ন ডলার। অর্থাৎ ভারতের বিদেশী মুদ্রা ভান্ডার পাকিস্তানের বিদেশী মুদ্রা ভান্ডারের থেকে ২৪ গুন বেশি।