Press "Enter" to skip to content

আজব খবর : ইকোনমি শোধরানোর জন্য এখন পাকিস্থান করছে গাধা ও মুরগির ব্যাবসা! এই টাকায় পাকিস্থানের অর্থনীতি পরিবর্তন করবে ইমরান খান !

পাকিস্তান ও ভারতের ইকোনোমির তুলনা আজ আকাশ ও পাতালের মধ্যে পার্থক্যের মতো হয়ে উঠেছে। বর্তমানে ভারত ইসরোর মাধ্যমে টাকা অর্জন করেছে, বিজ্ঞান ও আবিষ্কারের ভিত্তিতে ভারত এখন টাকা অর্জন করতে শুরু করে দিয়েছে। আগত দিনে ভারত অস্ত্রশস্ত্র এক্সপোর্ট করেও টাকা অর্জন করার দক্ষতা অর্জন করবে। অন্যদিকে আজ মোষের ব্যাবসার পর, গাধার ব্যাবসা আরম্ভ করে দিয়েছে। ের ইকোনমি এখন গাধা ব্যাবসার উপর দাঁড়িয়ে গেছে। অবিশ্বাস্যভাবে ে এখন গাধার ব্যাবসা ফুলে ফেঁপে উঠেছে। ের বেশকিছু এলাকা এখন সম্পূর্ণভাবে গাধা ব্যাবসার উপর টিকে রয়েছে।

ভারত যেখানে বিশ্বের উচ্চ পর্যায়ের বাণিজ্যিক দেশে পরিণত হয়েছে, পাকিস্থান সেই জায়গায় গাধা ব্যাবসার হাটে পরিণত হয়েছে। ভারত ও পাকিস্থানের মধ্যে আরো একটা বড়ো পার্থক্য এই যে পাকিস্থান একটা হিন্দু বিদ্বেষী ইসলামিক দেশ, অন্যদিকে ভারত হিন্দুবহুল ধর্মনিরপেক্ষ দেশ। আসলে পাকিস্থানের লোকজন চিন্তাভাবনার দিক থেকেও অনেক পিছিয়ে। পাকিস্থানের মানুষ পৃথিবীকে চ্যাপ্টা বলে দাবি করে।

পাকিস্থানের জনগণ দাবি করে যে এটাই তাদের ধার্মিক শিক্ষা। এই নিন্ম চিন্তাভাবনার জন্য পাকিস্থান তাদের ব্যাবসা গাধা, মোষ, মুরগির বেশি এগিয়ে নিয়ে যেতে পারছে না। পাকিস্থানে কিভাবে গাধার ব্যাবসা ফুলেফেঁপে উঠেছে তার রিপোর্ট নিচের ভিডিওতে দেওয়া হয়েছে। জানিয়ে দি, এর আগে পাকিস্থানের ভিখারি প্ৰধানমন্ত্রী মোষ ও মুরগি ব্যাবসার মাধ্যমে পাকিস্থানের
ইকোনমি চালানোর পরিকল্পনা করে ফেলেছেন।

ইমরান খান পাকিস্থানকে ব্যাংকক বানানোর ঘোষণা করেছিলেন, কিন্তু এখন পাকিস্থানের ইকোনমি মোষ, গাধা ইত্যাদির উপর নির্ভরশীল হয়ে পড়েছে। তবে ৬-৭ মাস আগে পাকিস্থানের অবস্থা এমন ছিল না, কারণ আগে পাকিস্থানের ইকোনমি ভারতে জালি নোট পাচারের উপর চলতো। কিন্তু মোদী ভারতে নোরবন্ধি করার পর থেকে পাকিস্থানের সেই ব্যাবসা বন্ধ হয়ে গিয়েছে।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.