Press "Enter" to skip to content

অর্থের অভাবে POK তে ড্যাম তৈরির জন্য জনগণের কাছে হাত পাততে হলো পাকিস্থানকে।

ধর্মের নামে কট্টরপন্থী পাকিস্থানীরা ইসলামিক দেশ পাকিস্তান বানিয়ে ফেলেছিল ঠিকই কিন্তু স্বাধীনতা পাওয়ার পর থেকেই পাকিস্থান অন্য দেশের ভিক্ষার উপরে টিকে আছে। আপনাদের জানিয়ে রাখি পাকিস্থান তার সৃষ্টির প্রথম থেকেই তাদের বেশিরভাগ অর্থ ভারতে জঙ্গি প্রবেশ ও নিজেদের পারমাণবিক শক্তি বৃদ্ধি করার জন্য কাজে লাগাতো। আর সেই কারণে আজ পাকিস্তানের অবস্থা এমন হয়ে উঠেছে যে একটা ড্যাম বানাতেও জনগণের কাছে হাত পাততে হচ্ছে। পাকিস্থান পিওকেতে সিন্ধু নদীর উপর প্রস্তাবিত ড্যাম তৈরি জন্য পাকিস্থানের জনগণের কাছে ভিক্ষা চেয়েছে।

আসলে বর্তমানে পাকিস্থানের এমন অবস্থা যে এক হাতে রয়েছে পারমাণবিক বোমা আর এক হাতে রয়েছে ভিক্ষা করার থালা। কোনো দেশের এই রকম অবস্থা হওয়ার থেকে লজ্জা আর কিছু হতে পারে না। পাকিস্থানের চিফ জাস্টিস জনগণের কাছে আবেদন করেছে যে আপনার কিছু কিছু করে অর্থ দান করুন যাতে আমরা ড্যাম বানাতে পারি। কিন্তু কেউ ভাবে চাঁদা তুলেও যদি পাকিস্থান ড্যাম বানানোর চেষ্টা করে তাহলেও পাকিস্তানকে বহু অপেক্ষা করতে হবে কারণ ড্যামের তৈরির খরচ এতটা কম নয় যে জনগণের চাঁদায় তা তৈরি হয়ে যাবে। তবে এই প্রথম নয় ২০০৫ সালে ভূমিকম্পের পর পাকিস্থানের সরকার জনগণের কাছে চাঁদার জন্য হাত পেতে ছিল।

আসলে পাকিস্থানের এই রকম অবস্থা হওয়ার একটাই কারণ তা হলো পাকিস্থান নিজেদের উন্নতি দিকে লক্ষ না রেখে ভারতকে কিভাবে ধ্বংস করা যায় সেইদিকে নজর রাখে। জানলে অবাক হবেন পাকিস্থানের এমন দুর্দশাপূর্ন অবস্থাতেও তারা সুরক্ষার জন্য ১০% বেশি অর্থ বরাদ্দ করেছে। পাকিস্থানের বিশেষজ্ঞদের মতে এই বছর শেষ হওয়ার আগেই পাকিস্থান বিক্রি হয়ে যাবে কারণ পাকিস্থান আগের বছর থেকে ৭ আরব ডলার ঋণ নিয়েই চলেছে যা পাকিস্থানকে ধীরে ধীরে শেষ করে ফেলছে। ভিডিও দুটি দেখুন-