Press "Enter" to skip to content

মোদী বিরুদ্ধে নির্বাচন লড়তে রাহুল গান্ধীকে সমস্তরকম সমর্থন পাকিস্থানের! রাহুল গান্ধীর জন্য প্রচার শুরু করলো পাকিস্তান।

যে শুধু দেশের বিরোধী পক্ষের নেতাদের জন্য সমস্যা সৃষ্টি করেছে এটা নয়, বরং ও চীনের জন্যও মোদী বড়ো বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছে। কংগ্রেস ও বাকি বিরোধী দলের নেতাদের সাথে চীন ও হাত মিলিয়ে মোদী বিরোধিতায় নেমে পড়েছে। যতই সামনে আসছে ততই চীন ও পাকিস্থান ব্যাস্ত হয়ে পড়েছে মোদীকে সরানোর জন্য। কারণ পাকিস্থান ও চীন মনে করছে যদি পরবর্তী ৫ বছর মোদী টিকে যায় তাহলে অবস্থা আরো শোচনীয় করে তুলবে। এই ৪-৫ বছরে মোদী যেভাবে পাকিস্থান ও চীনের জন্য আন্তর্জাতিক মহলে অস্বস্তিকর পরিবেশ গড়ে তুলেছে এবার তার থেকেও বড়ো সমস্যা করবে মোদী, এমনটাই মনে করছে পাকিস্থান ও চীন। এই কারণে এখন পাকিস্থানের বড়ো বড়ো নেতারা খোলাখুলি মন্তব্য করতে শুরু করেছে।

পাকিস্থানের পূর্ব স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রহমান মল্লিক খোলাখুলি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিরোধিতা ও রাহুল গান্ধীর সমর্থন করতে শুরু করেছেন। রহমান মল্লিক ের জনগণের কাছে অনুরোধ করেছেন যে যেভাবেই হোক মোদীকে হটিয়ে রাহুল গান্ধীকে প্রধানমন্ত্রী পদে বসান। রহমান মল্লিক লিখিতভাবে প্রধানমন্ত্রী পদে রাহুল গান্ধীকে বসানোর জন্য অনুরোধ করেছেন। শুধু এই নয় পাকিস্থানের কুখ্যাত জঙ্গি হাফিজ শাহিদও কংগ্রেসকে সমৰ্থন করেছে। একই সাথে পাকিস্থানের জেনারেল বাজওয়া রাহুল গান্ধীকে পূর্ন সমর্থন জানিয়েছে।

রহমান মালিক পাকিস্থানের নেতা হলেও উনি এখন টুইটারে লাগাতার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিরোধ অভিযানে নেমে পড়েছেন এবং অন্যদিকে রাহুল গান্ধীকে প্রধানমন্ত্রী পদে বসানোর জন্য ভারতবাসীর কাছে অনুরোধ করেছেন। ঠিক কংগ্রেসের মতো করেই রহমান মালিক নরেন্দ্র মোদীর উপর আক্রমণ শুরু করেছেন। রহমান মালিকের দাবি, মোদী নাকি রাহুল গান্ধীকে ভয় পান এবং মোদীর থেকে বুদ্ধিমান ব্যাক্তি। রহমান মালিক বলেছেন, মোদী ভারত ও পাকিস্থান দুই দেশের জন্যেই বিপদজনক।

তাই মোদীকে সরিয়ে রাহুল গান্ধীকে বসানোর আপিল করেছেন। এখান থেকে এটা স্পষ্ট যে মহাজোট বন্ধনে এখন কংগ্রেসের সাথে পাকিস্থান ও হাফিজ শাহিদও জোট বেঁধেছে। ২০১৯ নির্বাচন যতই সামনে আসতে থাকবে ততই জঙ্গি, কংগ্রেস, নকশালী, আতঙ্কবাদ, সন্ত্রাসবাদ সব এক হয়ে মোদীর বিরুদ্ধে জোট বাঁধবে যার পক্রিয়া রীতিমতো শুরু হয়ে গিয়েছে।