Press "Enter" to skip to content

অভিনেতা পরেশ রাওয়াল বিরোধীদের এমন মন্তব্য করলেন যে তারা ২০১৯ এর আগেই হার মানবে।

আসামে প্রকাশিত NRC নিয়ে রাজনীতি চরমে রয়েছে। ৪০ লক্ষ অবৈধ বাংলাদেশি হিসেবে প্রাথমিক রিপোর্ট বেরোবার পর বিরোধী দলগুলি মোদী সরকারকে লাগাতার আক্রমণ করে চলেছে। মূলত পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী এই ইস্যুতে কেন্দ্র সরকারের উপর হামলা চালিয়ে যাচ্ছে। আপনাদের জানিয়ে রাখি যে অবৈধ বাংলাদেশিরা এতদিন ভোট দেওয়ার সুযোগ পেতো তাদের কাছে থেকে সেই অধিকার কেড়ে নেওয়া হবে। অর্থাৎ এতদিন ধরে কংগ্রেস ও বামফ্রন্ট আসামে যে ভোট ব্যাঙ্ক গড়ে তুলেছিল তা সম্পূর্নরূপে ভেঙে পড়ার অবস্থায় রয়েছে। আর এই বিষয়ের উপর মন্তব্য করতে গিয়ে বিখ্যাত বলিউড বিজেপি বিরোধীদের উপর আক্রমণ করেছেন। পরেশ রাওয়াল টুইট করে লিখেন, ২০১৯ এর ফলাফলের প্রথম দৃষ্টান এসেগেছে, বিরোধীরা ৪০ লক্ষ ভোটে পিছিয়ে রয়েছে। পরেশ রাওয়াল এর এই টুইট সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে পড়েছে। প্রচুর সংখ্যক মানুষ পরেশ রাওয়াল এর টুইটকে রিটুইট করেছেন এবং বহু কমেন্ট ও পড়েছে।

বিমল পান্ডে নামক এক ইউজার পরেশ রাওয়াল এর টুইট রিটুইট করে বলেছেন,” আজব পরিস্থিতি! কংগ্রেস সপাকে(সমাজবাদী পার্টিকে) বাঁচানোর চেষ্টা করছে, সপা বসপাকে(বহুজন সমাজবাদী পার্টিকে) বাঁচানোর চেষ্টা করছে, বসপা কংগ্রেসকে বাঁচানোর চেষ্টা করেছও, তৃণমূল বামফ্রন্টকে বাঁচানোর চেষ্টা করছে। আর সকলে মিলে বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীদের বাঁচানোর চেষ্টা করছে।”

শৈলেন্দ্র বার্মা নামক এক ইউজার রিটুইট করে লিখেন, ” ২০১৪ এর জোয়ার ২০১৯ এ তুফান হিসেবে সামনে আসছে। ভক্তদের সাথে পাঙ্গা নেবেন না, ২০১৯ এ আরো একবার মোদী সরকার আসছে।”

ব্রীজেশ শর্মা নাকম এক ইউজার রিটুইট করে লিখেছেন, ২০১৯ এর ফলাফল তো এখন শুধু একটা রাজ্য থেকে এসেছে, মহাশয় পশ্চিমবঙ্গ এখনো বাকি আছে।”

রাহুল নামক এক ইউজার লিখেন, “কীটনাশক নামক ওষুধ এখন শুধু আসামে প্রয়োগ হয়েছে কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের পোকা মাকর বেশি লাফাচ্ছে।”

এই টুইটের পরিপেক্ষিতে কানসাল নামক এক ব্যক্তি লিখেন, “পোকামাকড় যত না বিলবিল করছে তার থেকে তাদের আম্মি বেশি বিলবিল্লাছে।”

অলকা সিংহ নামক এক ইউজার বলেন, “এতদিন যারা ১৫ লক্ষ টাকার লিস্টে নিজেদের নাম খুজত তারা আজ ৪০ লক্ষে নাম এসেগেছে কিনা সেই চিন্তায় পড়েগেছে। জয় হিন্দ।’
পরেশ রাউলের টুইটের ভিত্তিতে মানুষ যা প্রতিক্রিয়া দিতে শুরু করেছে তা নিজে নিজে এটা প্রমান করে NRC উপর দেশবাসীর মনোভাব কেমন রয়েছে। দেশবাসী যে NRC এর পর বেশ খুশ মেজাজেই রয়েছেন তা দিন দিন পরিষ্কারভাবে বোঝা যাচ্ছে।

তবে এই ৪০ লক্ষের মধ্যেও যারা এখনো নিজেদের ভারতীয় বলে করেন তাদেরকে প্রমাণপত্র দেখানোর আরো সুযোগ দেওয়া হবে। সবথেকে উল্ল্যেখ ব্যাপার এই বিষয় নিয়ে অনেকে অপপ্রচার করছে।আপনাদের জানিয়ে দি, দেশ থেকে অবৈধ বাংলাদেশিদের বের করার সিধান্ত নেওয়া হবে কিন্তু শরণার্থীদের সাথে কোনোরকম ভেদভাব করা হবে না সরকারের পক্ষ থেকে। অনেক মানুষ হিন্দু শরণার্থী ও অবৈধ বাংলাদেশিদের এক করে গুজব রটাচ্ছেন যা দেশের শান্তির বাতাবরণ নষ্ট করছে।