Press "Enter" to skip to content

পেট্রোল ডিজেলের দাম নিয়ে বড় সিধান্ত মোদী সরকারের!এবার এই সিধান্ত অবলম্বন করে পেট্রোল ডিজেলের দাম হবে মাত্র ৫০ টাকা।

পেট্রোল ের দাম নিয়ে দেশকে উত্তাল করে তুলেছে মোদী বিরোধীরা। আসলে সামনে লোকসভা নির্বাচনে লক্ষ রেখে বিরোধীরা বড়ো আন্দোল করার জন্য উঠে পড়ে লেগেছিল। কিন্তু মোদী আমলে যে হারে বিকাশ হয়েছে তাতে প্রশ্ন তোলার কোনো জায়গা ছিল না বিরোধীদের কাছে। শেষমেষ পেট্রোল ও ের দাম নিয়ে পথে নেমে আন্দোলন করতে শুরু করেছে মোদী বিরোধীরা। বড়ো রকমের আন্দোলের জন্য ভারতবন্ধের ডাক দিয়েছিল কংগ্রেস বামপন্থী সহ অন্যান্য বিরোধীরা। তবে পেট্রোল ের দাম নিয়ে এবার বড়ো মন্তব্য করলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নিতিন গটকড়ি যা কংগ্রেস সহ বিরোধীদের বড়ো ঝটকা ধরবে। কেন্দ্র সরলার পেট্রোল ও ের দামের উপর লাগাম লাগানোর জন্য বড়ো পদক্ষেপ নিচ্ছেন যার পর পেট্রোল ও ের দাম ৫০ টাকার মধ্যে চলে আসবে।

কেন্দ্রীয় পরিবহন মন্ত্রী জানান খুব শীঘ্রই ডিজেলের দাম ৫০ টাকা হবে। নিতিন গড়কড়ি  জানান দেশে ৫ টি ইথানল ফ্যাক্টরি তৈরি করা হয়েছে। ছত্রিশগড়ের এক দুর্গ থেকে বলেন আমরা পাচঁটি ইথানল তৈরির কারখানা করেছি যেখনে বজ্র পদার্থ  ও কাঠের জিনিস দিয়ে তৈরী করা হবে ইথানল।  গটকড়ি বলেন পেট্রোল ৫৫ টাকা ও ডিজেল ৫০” টাকায় পাওয়া যাবে। নীতিন গটকড়ি বলেন, বায়োফুয়েল তৈরি করে এয়ারক্রাফট উড়ানো সম্ভব।

জানিয়ে দি মোদী সরকার ২০৩০ এর মধ্যে বাস ও অন্যান্য যানবাহনে পেট্রোল ও ডিজেলের বন্ধ করার পথে চলা আরম্ভ করে দিয়েছে। অন্যদিকে দিল্লি থেকে দেরাদুন যাত্রায় জৈব চালিত বিমান চালানোর সিধান্ত নেওয়া হয়েছে এবং এর জন্য সফল পরীক্ষণ করা হয়েছে। জৈব জ্বালানি থেকে  GST চার্জ কমিয়ে ১২ টি জৈব শোধনাগার তৈরির ঘোষণা করেছে সরকার।

নিতিন গকড়ির এই ঘোষণার পর থেকে বিরোধীদের মধ্যে খলবলি শুরু হয়েছে। কারণ সরকারের বিরুদ্ধে একমাত্র ইস্যু বলতে পেট্রোল ও ডিজেলের দাম বৃদ্ধি ছিল যা খুব তাড়াতাড়ি মিটিয়ে নিতে চলেছে মোদী সরকার। প্রসঙ্গত, নীতিন গটকড়ি  গাড়ি তৈরির সংস্থাগুলিকে 2030 এর মধ্যে তাদের পরিকাঠামো পরিবর্তনের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন।