Press "Enter" to skip to content

যেই অফিসারকে টেনে রাফেল নিয়ে মোদীকে বিঁধতে গেছিলেন রাহুল, সেই অফিসারই রাহুলকে মিথ্যুক প্রমাণিত করলেন

রাফেল চুক্তি নিয়ে আবার রাহুল গান্ধীর মিথ্যা সামনে এলো। প্রাক্তন এয়ার মার্শাল এসবিপি সিনহা সমস্ত অভিযোগ খারিজ করে দেন। অভিযোগ উঠেছিল যে, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় রাফেল চুক্তি নিয়ে দখলআন্দাজি করেছিল। এয়ার মার্শাল এসবিপি সিনহা রাফেল বিমান কেনা নিয়ে চলা কথাবার্তায় ভারতীয় দলের নেতৃত্বে ছিলেন।

Air-Marshal-Sinha

উনি সমস্ত অভিযোগকে ভিত্তিহীন দাবি করে বলেন, ‘একটি ের কাগজে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের ছাপা গল্প দেখে আমি আশ্চর্য হই। তথ্য লুকিয়ে ওই নোটের মাধ্যমে রাফেল চুক্তিকে বদনাম করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে” সিনহা ওই নোটের উল্লেখ করে বলেন, যেই আধিকারিক এই কাজের শুরু করেছিলেন। সে রাফেল চুক্তির কথাবার্তার দলের সদস্য ছিলেন না। আর এই কাজ করার ওনার কোন অধিকার নেই।

G-Mohan-Kumar

দ্য হিন্দু পত্রিকা রাফেল চুক্তি নিয়ে একটি রিপোর্ট ছাপে। ওই রিপোর্টে বলা হয়েছে যে প্রতিরক্ষা মন্ত্রক যখন এই চুক্তি নিয়ে ফ্রান্সের সাথে কথাবার্তা চালাচ্ছিল, তখন সেই চুক্তি নিয়ে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় ও ফ্রান্সের সাথে কথাবার্তা শুরু করে। আর সেই ব্যাপারে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের আধিকারিকরা প্রতিরক্ষা মন্ত্রী মনোহর পারিরকর কে একটি নোট পাঠিয়েছিলেন।

দ্য হিন্দুর ওই রিপোর্ট আসার পর রাফেল চুক্তির সময় প্রাক্তন প্রতিরক্ষা সচিব জি.মোহন কুমারের ও বয়ান সামনে এসেছে। উনি বলেন, ওই নোটের সাথে রাফেলের দামের কোন সমন্ধ্য নেই। ওটা শুধু সোভেরান গ্যারান্টি, সামান্য নিয়ম আর শর্তকে নিয়ে ছিল। ওই রিপোর্টে আরও অনেক তথ্য ছিল।

কুমার রাফেল চুক্তিতে স্বাক্ষর করার সময় প্রতিরক্ষা সচিব ছিলেন। উনি বলেন, এই নোট ‘সোভেরান গ্যারান্টি” সমন্ধ্যে ছিল। দামের সাথে এই নোটের কোন সম্পর্ক নেই। উনি বলেন, এরকম অনেক অমিমাংসিত ইস্যু ছিল, যেটার সমাধান দের করা হয়েছিল, তার মধ্যে সোভেরান গ্যারান্টিও ছিল। কুমার জানান, দাম নিয়ে সমস্ত রকম কথাবার্তা কমিটি করেছিল, পিএমও না।

9 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.