Press "Enter" to skip to content

ডায়মন্ড হারবারে হিন্দু বিতাড়ন নিয়ে নিশ্চুপ মিডিয়া ও রাজনৈতিক মহল! সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র প্রতিবাদের হাওয়া।

পশ্চিমবঙ্গের ের নহাজারী এলাকা থেকে হিন্দু বিতাড়নের ঘটনা সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে পড়েছে। পশ্চিমবঙ্গ পরবর্তী কাশ্মীর কিনা সেই নিয়েও প্রশ্ন উঠতে শুরু হয়েছে। কারণ ভোটের ঠিক আগের মুহুর্তে হিন্দুরা নিজের এলাকা থেকে পলায়ন করছে। টাইমস নাও এর অনুযায়ী, TMC নেতার নেতৃত্বে গুন্ডাব্রিগেড হিন্দুদের উপর আক্রমন চালিয়েছে। নহাজারী অঞ্চলের প্রাক্তন প্রধান মাবিয়া বিবির স্বামী আজান শেখ ও আরো কিছু কট্টরপন্থীরা তাদের দলবল নিয়ে এলাকায় হামলা চালিয়েছে। এমনকি তৃণমূল কংগ্রেস পার্টির সদস্য এমন হিন্দুরাও এই আক্রমনের শিকার হয়েছে বলে টাইমস নাও সূত্রে

তবে ঘটনা নিয়ে রাজ্যের সংবাদ মাধ্যম, রাজনৈতিক পার্টির নেতার মুখে কুলুপ এঁটে নিয়েছে। কোনো একটাও নেতা হিন্দুদের বিতাড়নের সমালোচনা বা হিন্দুদের সুরক্ষা নিয়ে একটাও কথা বলতে রাজি নয়। TMC হোক বা BJP সব পার্টি ডায়মন্ড হারবারের ঘটনা নিয়ে নিশ্চুপ। যে নেতারা কথায় কথায় প্রেস ডেকে একে ওপরের উপর অভিযোগ তোলে, সমালোচনায় মুখর হয়। সেই নেতারা সাধারণ হিন্দু ভোটারদের জন্য একটা শব্দও প্রয়োগ করতে রাজি নয়। কারণ নেতারা মনে করেন, যদি হিন্দুদের অধিকার নিয়ে কথা বলা হয় তবে সেটা ধৰ্মনিরপেক্ষতার অবমাননা হবে।

আরো একটা বাস্তবিক সত্য এই যে, হিন্দুরা এক নয়। এখন হিন্দুদের মধ্যে কিছুটা একতা দেখা গেছে কিন্তু সেটা বেশিরভাগই রাজনৈতিক একতা তথা রাজনীতির জন্য। এই কারণে দেশের মিডিয়া নেতা সকলেই হিন্দু বিতাড়ন নিয়ে নিশ্চুপ থাকে। মাত্র কয়েকদিন পরেই ডায়মন্ড হারবারে ভোট তাই কোনো পার্টি হিন্দুদের হয়ে কথা বলে ভোট ব্যাঙ্কে ক্ষতি করার মতো রিস্ক নিতে রাজি নয়। তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ইস্যুতে লাগাতর প্রতিবাদের ঝড় দেখা যাচ্ছে। বহুজন রাজ্য ও কেন্দ্র সরকারের কাছে ন্যায় এর জন্য আওয়াজ তুলেছে।