Press "Enter" to skip to content

চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট! গরিব সংখ্যা কমে, ধনী ব্যাক্তিদের সংখ্যায় তিন বছরে এই দুই শক্তিশালী দেশকে টপকে দেবে ভারত।

কিছুদিন আগেই সম্পর্কিত একটা রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছিল যেখানে বলা হয়েছিল ে সবথেকে দ্রুত গতিতে গরিবের সংখ্যা কমছে।এর কারণ হিসেবে দেশের বর্তমান সরকারের নীতি ও যোজনা সুনাম করা হয়েছিল। এছাড়াও সরকারের আয়ুষ্মান যোজনা পরবর্তীকালে দেশের গরিবদের রূপ বদলে দেবে বলে দাবি করেছে ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন। কারণ স্বাস্থ্যের কারণে গরিব মানুষ আর গরিব সীমার নীচে নেমে যায় কিন্তু আয়ুষ্মান প্রকল্পের ফলস্বরূপ দেশের গরিবদের স্বাস্থ্যের খেয়াল রাখবে সরকার। তবে এখন আর একটি রিপোর্ট বেরিয়ে এসেছে যা সরকারের উপলদ্ধিকে আরো বাড়িয়ে দেবে। নাইট ফ্র্যাঙ্ক নামক একটি আন্তর্জাতিক সংস্থা তাদের একটি রিপোর্ট পেশ করেছে। তারা তাদের সেই রিপোর্টে দাবি করেছেন যে, ভারতবর্ষ ২০২২ সালের মধ্যে ধনী ব্যক্তির সংখ্যায় বিশ্বের তাবর তাবর দেশকে পিছনে ফেলে সামনের দিকে এগিয়ে যাবে।

ভারত রাশিয়া, ফ্রান্স ও ব্রিটেনের মত ধনী ধনী দেশকে ছাপিয়ে যাবে ২০২২ সালের মধ্যে। ভারতে ২০১৭ সালে ২০০ জন কোটিপতি ছিল, তাদের প্রত্যেকের কাছে ছিল ৩৫০০ কোটি টাকার বেশি সম্পতি। সেই সংখ্যা বেড়ে ২০২২ সালে ৩৪০ জন হয়ে যাবে। ফ্রান্সে সেই সময় কোটিপতির সংখ্যা ৩১০ জন হবে। এবং রাশিয়ার ও ইউকে ক্ষেত্রে সেই সংখ্যাটা গিয়ে দাঁড়াবে ২২০ জন।ওয়েল্থ এর প্রকাশ করা রিপোর্ট অনুযায়ী, উত্তর আমেরিকার থেকে এশিয়ার ধনী ব্যাক্তির সংখ্যা আগামী ৫ বছরের মধ্যে অনেকটা বেড়ে যাবে।

বিশ্বজুড়ে দিনের পর দিন লাগাতার আর্থিক প্রগতি ও সম্পতির বাড়তে থাকা মূল্য এর কারনেই এশিয়াতে ধনী ব্যাক্তির সংখ্যা ৩০০০ এর থেকেও বেশি হয়ে যাবে। আর এটা সম্পূর্ণ হবে ২০২২ সালের মধ্যেই। তবে মনে করা হচ্ছে যে, আমেরিকাতেই সবথেকে বেশি সংখ্যক থাকবে সেই সময়। তাদের ধনী ব্যাক্তির সংখ্যা বেড়ে হয়ে যাবে ২৫০০ জন। যেটা আগে ছিল ১৮২০ জন মাত্র।

চিনেরও এই সংখ্যা অনেকটাই বেড়ে হয়ে যাবে ৯৯০ জন এর মত। যেটা আগে ছিল ৪৯০ জন।
কিন্তু তুলনামূলক ভাবে ধনী ব্যাক্তিদের তালিকায় সবচেয়ে উন্নতিশীল দেশ হিসাবে আত্মপ্রকাশ করবে ভারত। ভারতবর্ষ এই বিশ্বের অনেক ধনী ধনী দেশকে পিছনে ফেলে সামনের দিকে উঠে আসবে। প্রসঙ্গত, ইস অফ ডুইং বিজনেসে ভারতের রাঙ্ক ১৪২ থেকে উঠে এসে ১০০ চলে এসেছে যার কারণে যুব সমাজ খুব সহজেই নিজের বিজনেস খাঁড়া করতে পারছে। এছাড়াও কম সুদে লোন দেওয়ার ক্ষেত্রে সরকার বেশ সুবিধাজনক নীতি নিয়ে এসেছে যাতে দেশের যুবসমাজ খুব সহজেই নিজের জায়গা করে নিতে পারছে।

#অগ্নিপুত্র