Press "Enter" to skip to content

“এবার পাকিস্থান নয় কবরস্থান দেওয়া হবে” দেশদ্রোহী কট্টরপন্থীদের এমনি জবাব দিলেন ইনি।

১৯৪৭ সালে যেভাবে কট্টরপন্থীরা তথাকথিত হিন্দু সেকুলারদের সাথে মিশে ভারত মাতার টুকরো করেছিল তা এখনো প্রত্যেক হিন্দুর কাছে একটা খারাপ স্বপ্নের মত। অখন্ড ভারতের একদিক পাকিস্থান আর একদিকে বাংলাদেশ তৈরি করে ভেঙে ফেলা হয়েছে ভারতকে। কিন্তু এখনো থেমে নেই সেই সমস্ত কট্টরপন্থীরা। আসলে দেশের সবথেকে বড় মুসলিম সংগঠন অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড দেশের প্রত্যেক জেলায় মুসলিমদের জন্য শরিয়া আদালত তৈরি করার সিধান্ত নিয়েছে।

 

মুসলিমদের জন্য আলাদা করে শরিয়া আদালত এই সিদ্ধান্তের তীব্র বিরোধ জানিয়েছে বিজেপি। এমনকি মুসলিম শিয়া সম্প্রদায়ওত এই শরিয়া আদালতকে অসাংবিধানিক বলে দাবি করেছে। যদিও শরিয়া আদালত তৈরির জন্য মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ডকে সমর্থন জুগিয়েছে দেশের সবথেকে পুরানো রাজনৈতিক দল । তবে শরিয়া আদালতের উপর উপর ও রাষ্ট্র বাদীদের বিরোধিতা জানানোর পর থেকে থেকে কট্টরপন্থীরা নতুন নাটক শুরু করেছে। আসলে জম্মুকাশ্মীরের গ্রান্ডমুফতি(মুসলিম ধর্মগুরু) নাসির উল দাবি তুলেছে, যদি মুসলিমদের আলাদা শরিয়া আদালত না দেওয়া হয় তাহলে আবার ভারত ভেঙে মুসলিমদের নতুন দেশ দেওয়া হোক। শুধু এই নয় নাসির উল নামক এই এক নিউজ চ্যানেলে এসে কাশ্মীরকে ভারত থেকে আলাদা করারও হুমকি দিয়েছে। তবে এই দেশদ্রোহীদের বেশভালো রকম জবাব দিয়েছেন বিজেপির রাষ্ট্রীয় প্রবক্তা । এমনকি ভারতের খেয়ে পাকিস্থানের গুনগাওয়া ওই মুফতিকে বেইমান বলেও অভিহিত করেছেন সম্বিত পাত্র। তবে এই সমস্ত দেশদ্রোহী ও কট্টরপন্থীদের উদ্দেশ্যে বিখ্যাত উকিল ও সোশ্যাল একটিভিস্ট প্রশান্ত প্যাটেল উমরাও যা বলেছেন তা আপনার মন জয় করবে। আসলে প্রশান্ত প্যাটেল উমরাও বলেছেন, ‘এবার পাকিস্থান নয়, কবরস্থান দেওয়া হবে।’

আসলে যারা দেশভাগ করার চেষ্টা করছেন অথবা ভারতকে ইসলামিক দেশ করার চেষ্টা করছেন তাদের উদ্দেশ্যে এই টুইট করেছেন প্রশান্ত প্যাটেল উমরাও। আসলে দেশদ্রোহীরা হয়তো ভুলে গেছে যে এখন ভারতের শাসন ক্ষমতা কোনো সেকুলারের হাতে নয় বরং রাষ্ট্রবাদীদের হাতে রয়েছে। উনি বুঝিয়ে দেন যে আর ভারতের রাষ্ট্রবাদীরা দেশভাগ করতে েন না এবার ভারত ভাগ করতে চাইলে পাকিস্থান নয় বরং কবরস্থান দেওয়া হবে কট্টরপন্থীদের।