Press "Enter" to skip to content

রাফেল নিয়ে পিএম মোদী যা জবাব দিলেন, শুনে ‘থ” হয়ে গেলো গোটা কংগ্রেস দল

বৃহস্পতিবার লোকসভায় প্রধানমন্ত্রী বিরোধীদের প্রশ্নের উত্তর দেন। লোকসভায় বাজেট পেশের ষষ্ঠ দিনে রাষ্ট্রপতির ভাষণের পর প্রধানমন্ত্রী বিরোধীদের জবাব দেন। প্রধানমন্ত্রী নিজের ভাষণে প্রথমবার ভোট দিতে যাওয়া যুব সমাজের দলকে ভবিষ্যৎ এর জন্য শুভকামনা জানান। আর ওনার ভাষণে উনি কংগ্রেসের উপর তীব্র আক্রমণ করেন।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কংগ্রেসের উপর আক্রমণ করে বলেন, ‘কংগ্রেস মুক্ত ভারত আমার স্লোগান না। এটা তো মহত্মা গান্ধীই অনেক আগে বলে গেছিলেন। আমরা তো উনার স্বপ্ন পূরণ করছি। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, গণতন্ত্রে সমালোচনা ন্যায্য, আপনি মোদীর সমালোচনা করেন। কিন্তু বিরোধীরা মোদীর সমালোচনা করতে করতে দেশের সমালোচনা শুরু করে দেয়। আপনারা বিদেশে গিয়ে দেশের নামে বদনাম করেন।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, আপনারা মোদীর সমালোচনা করতে করতে সেনাকে নিয়েও সন্দেহ করেন। সেনাকে অপমান করেন। সেনা প্রধানকে গুন্ডা বলেন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, যখন বাজেটের কথা হচ্ছিল, তখন আপনারা ইভিএম নিয়ে কান্নাকাটি করছিলেন। কংগ্রেস মোদীর উপর সংস্থানকে শেষ করার অভিযোগ তোলে। কিন্তু আপনারা কি করেছেন? সংস্থান গুলোকে তো কংগ্রেস হুমকি দিত। বিচারপতিগণদের কংগ্রেস হুমকি দিত। চিফ জাস্টিস অফ ইন্ডিয়ার বিরুদ্ধে কারা গেছিল? সেনার উপর দোষ কারা চাপিয়েছিল?

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী রাফেল প্রসঙ্গে বলেন, এর আগে দেশের কোন চুক্তি বিনা দালালিতে হয়নি। এখন কংগ্রেস কোন সন্দেহের বশে এসব করছে? উনি বলেন, আমরা দুর্নীতিতে যুক্ত তিনটে দালালকে বিদেশ থেকে ধরে এনেছি। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, দেশে কমনওয়েলথ গেম চলাকালীন দেশের খেলোয়ারেরা পদক পাওয়ার জন্য পরিশ্রম করছিল। আর কংগ্রেসের নেতারা পকেট গরম করছিল।

আমাদের উপর অভিযোগ আনা হচ্ছে, কিন্তু আমরা তাঁদের ধরে আনছি যারা দেশকে লুটে পালিয়েছিল। যারা দেশ থেকে টাকা নিয়ে পালিয়ে গেছিল, তাঁরা আজ টুইট করে বলছে, আমি তো ৯হাজার কোটি নিয়ে পালিয়েছিলাম। আর মোদী আমার ১৩ হাজার কোটি টাকা বাজেয়াপ্ত করল।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, কংগ্রেস চায়নি কোনদিনও আমাদের বায়ুসেনা শক্তিশালী হোক। আজ আমাদের সরকার না আসলে তেজস বিমান কোন গোডাউনে পরে থাকত। প্রতিবেশী দেশ গুলো একের পর এক নতুন হাতিয়ার, বিমান তৈরি করছিল। আর কংগ্রেস আমলে আমাদের দেশে সেই পুরানো বিমান নিয়েই চলছিল। রাফেল নিয়ে কংগ্রেস দালালি খেতে পারেনি, তাই রাফেল তাঁরা এদেশে আনেনি।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, সুপ্রিম কোর্ট বলেছে রাফেল নিয়ে দুর্নীতি হয়নি। রাফেল প্রস্তুতকারক সংস্থা বলেছে রাফেল নিয়ে দুর্নীতি হয়নি। ফ্রান্স সরকার ও বলেছে রাফেল নিয়ে দুর্নীতি হয়নি। তাহলে রাহুল গান্ধী এর দুর্নীতির গন্ধ কোথায় পেলো? আর দুর্নীতি হয়েছে জানলে উনি রাফেল নিয়ে তথ্য দিচ্ছে না কেন?

7 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.