Press "Enter" to skip to content

রাজ্যসভায় বিজেপির রাম মন্দির বিল পেশ! পূর্ন সমর্থনের ঘোষণা করলো শিবসেনা।

এবার সরকার সুপ্রিম কোর্টের সাহায্য ছাড়াই রামমন্দির নির্মাণের সিধান্ত নিয়ে ফেলেছে। হোক বা বিজেপির সমর্থকরা সকলেই এটা বুঝে গেছে যে বিচারপতিদের কাছে হিন্দু আস্থার কোনো মূল্য নেই তাই শেষ ভরসা কেন্দ্র সরকার। রাজ্যসভা ও RSS এর ঘনিষ্ট রাকেশ সিনহা রাজ্যসভায় প্রাইভেট বিল পেশ করবেন। ের শীতকালীন অধিবেশন ডিসেম্বরে শুরু হবে। রাকেশ সিনহা যে বিল পেশ করবে তাতে বিজেপির সমস্থ েরা সমর্থন করবেন। আরেকটা বড়ো খবর সামনে আসছে সেই অনুযায়ী, এই বিলের পূর্নসমর্থন করবে। আজ ঘোষণা করে দিয়েছে যে তারা রামমন্দির তৈরির জন্য বিলের পূর্ন সমর্থন করবেন।

শিবসেনার নেতা সঞ্জয় রাউত লিখিতভাবে ঘোষণা করেছেন যে তারা রামমন্দিরের বিলের সমর্থন করবেন। রাকেশ সিনহা বিল পেশ করার পর বিজেপি ও শিবসেনা সমর্থনে আসবে। বিল রাজ্যসভায় পাশ হলে লোকসভায় আসবে, রাজ্যসভায় বিল ফেল হলে পরিষ্কার হয়ে যাবে কারা বিরোধে রয়েছে। তবে মোদী সরকারের কাছে যৌথ অধিবেশন ডাক দেওয়ার এবং অধ্যাদেশ আনার বিকল্প রয়েছে।

তবে রামমন্দির এবার হিন্দুরা পাবে এটা নিশ্চত, একইসাথে নকল হিন্দুদের ধরার একটা বড় সুযোগ এবার পাবে দেশের জনতা। জানিয়ে দি, সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি মাত্র ৩ মিনিটের শুনানির পর মামলা আরো ৩ মাসের জন্য ঝুলিয়ে দিয়েছেন তাই সরকার আর আদালতের উপর ভরসা করতে পারছে না। অনেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ এর কংগ্রেস ঘনিষ্ঠতা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন, কারণ উনি মামলা ২০১৯ পর্যন্ত নিয়ে যেতে চাইছেন। যেহেতু চিফ জাস্টিস রঞ্জন গগৈ এর পিতা একজন কংগ্রেস নেতা ছিলেন তাই সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকে এই নিয়ে ক্ষোপ প্রকাশ করছেন।

তাই সরকার আদালতের দিকে না তাকিয়ে নিজেদের পথে চলার সিধান্ত নিয়েছে, বিশেষ করে যোগী আদিত্যানাথ কোনোভাবেই হিন্দুদের আস্থায় আচঁ দিতে চান না, তাই সমস্থকিছুর উপর বিবেচনা করে সরকার বিল পেশ করার সিধান্ত নিয়েছে।যার সমর্থনে এগিয়ে এসেছে শিবসেনা, তবে বিরোধী পার্টি কংগ্রেস এই বিলের বিরোধিতা করবে বলেই অনেকের ধারণা।