Press "Enter" to skip to content

রোহিঙ্গা প্রেমী প্রিয়াঙ্কা চোপড়াকে সরিয়ে হিমা দাসকে করা হোক অসমের ব্র্যান্ড আম্বাসাডর, দাবি সোশ্যাল মিডিয়ায়।

অবৈধ অনুপ্রবেশ ভারতের জন্য একটা বড়ো সমস্যা। ভারত একমাত্র দেশ যেখানে রোহিঙ্গা, বাংলাদেশী মুসলিম ইত্যাদি অবাধে প্রবেশ করে যাচ্ছে। সরকার দেশে সাফাই কাজ করার কথা বললেও কাজের কাজ কিছুই হয় না। উল্টে নেতা, মন্ত্রীদের হাত ধরে আধার কার্ড, ভোটার কার্ড তৈরি করে অনুপ্রবেশকারীরা দেশে জনসংখ্যা বিস্তার করেই চলেছে। বাংলাদেশের সাথে লাগোয়া রাজ্যগুলিতে অবৈধ অনুপ্রবেশের ঘটনা সবথেকে বেশি। অসম ভারতের এমনি একটা রাজ্য যেখানে অবৈধ অনুপ্রবেশকারীদের সংখ্যা মাত্রা ছাড়িয়ে গেছে।

অসম রাজ্যের ব্র্যান্ড আম্বাসাডর অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়াও রোহিঙ্গাপ্রেমী বলে পরিচিত। ব্র্যান্ড আম্বাসাডর হওয়ার কারণে অসম সরকার উনাকে কোটি কোটি টাকাও প্রদান করেন। এখন সোশ্যাল মিডিয়ার প্রিয়াঙ্কা চোপড়াকে অসমের ব্র্যান্ড আম্বাসাডরের পদ থেকে সরানোর দাবি উঠেছে। যেটা অসমের মূল সমস্যা সেটাকেই সমর্থন করেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, যার জন্য উনাকে পদ থেকে সরানোর দাবি উঠেছে। পুরো ভারত দেশে ও অসমে ব্র্যান্ড আম্বাসডর হওয়ার জন্য অনেক যোগ্য ব্যাক্তি রয়েছে, তাদের কাউকে ওই পদ দেওয়ার দাবি উঠেছে।

অসমের মেয়ে হিমা দাস পুরো বিশ্বে ভারতের নাম আলোকিত করেছে। প্রিয়াঙ্কা চোপড়াকে সরিয়ে হিমা দাসকে ব্র্যান্ড আম্বাসাডর করার দাবি উঠেছে। সম্প্রতি অসমে বন্যার সময় প্রিয়াঙ্কা চোপড়া ১ পয়সাও জনগণের সাহায্যের জন্য প্রদান করেননি, অন্যদিকে হিমা দাস তার স্যালারি অর্ধেক টাকা বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ মানুষদের জন্য দান করে দিয়েছিলেন। এই যুক্তি দেখিয়েও অনেকে প্রিয়াঙ্কাকে ব্র্যান্ড আম্বাসাডর পদ থেকে সরানোর দাবি তুলেছেন।

you're currently offline