Press "Enter" to skip to content

মোদীকে বাদ দিয়ে অমিতাভ বচ্চনকে প্রধানমন্ত্রী করলে ভালো হতো: প্রিয়াঙ্কা গান্ধী।

গান্ধী পরিবারের সদস্য এবং কংগ্রেস পার্টির মহাসচিব প্রিয়ঙ্কা বঢরা উরফ () নরেন্দ্র মোদীকে ( ) আক্রমন করে আরো একবার ের শীর্ষে উঠে এসেছেন।
লোকসভা নির্বাচনের অন্তিম চরণের পারদ উঠা নামা শুরু হয়ে গেছে। আর সেই সাথে রাজনৈতিক আক্রমন তীব্র থেকে তীব্রতর হয়ে উঠেছে। উত্তরপ্রদেশের মির্জাপুরে এক নির্বাচনী সভা থেকে জনতাকে সম্বোধিত করতে গিয়ে প্রিয়াঙ্কা গান্ধী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে অভিনেতা বলে কটাক্ষ করেন। প্রিয়াঙ্কা গান্ধী বলেন বিশ্বের সবথেকে বড় অভিনেতা দেশের প্রধানমন্ত্রী হয়েছে। জানিয়ে দি, কংগ্রেস পার্টি প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে দ্বিতীয় ইন্দ্রিরা গান্ধী বলে জনতার সামনে পেশ করেছে। নিজেকে ইন্দ্রিরা গান্ধীর মতো দেখানোর জন্য উনি নাকের প্লাস্টিক সার্জারি পর্যন্ত করিয়েছেন বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় দাবি উঠেছে।

উনি বলেন এর থেকে ভালো হতো অভিনেতা () বাবুকে প্রধানমন্ত্রী বানিয়ে দিলে। উনি বলেন, BJP পার্টির উদেশ্য শুধু ক্ষমতা ক্ষমতা দখল করা। আগের নির্বাচনে দেওয়া প্রতিশ্রুতি পূরণ করেননি। প্রিয়াঙ্কা আরো বলেন, কংগ্রেস কখনো মিথ্যা দাবি করে না বরং কৃষক,গরিব,যুবকদের অধিকারের জন্য কথা বলে। প্রধানমন্ত্রী মোদীকে আক্রমন করে প্রিয়াঙ্কা বলেন নিজের ৫৬ ইঞ্চি ছাতি নিয়ে গর্ব করা ব্যাক্তির সাহস হয়নি কৃষকদের সাথ এসে সাক্ষাৎ করার। যদি উনি এত বড় ব্যাক্তি হন, এত শক্তিশালী ব্যাক্তি হন তাহলে কৃষকদের সাথে কেন কথা বলার সাহস নেই।

কংগ্রেস মহাসচিব প্রিয়াঙ্কা গান্ধী মির্জাপুরে পার্টির পার্থী লালিতেশ ত্রিপাঠির সমর্থনে রোড শো করেছিলেন। রোড শো এর মধ্যে এক সভা থেকে উনি বলেন নরেন্দ্র মোদী নেতা নয়, উনি অভিনেতা। এর থেকে অমিতাভ বচ্চন(Amitabh Bachchan) মহাশয়কে প্রধানমন্ত্রী করলে ভালো হতো।
প্রিয়াঙ্কার রোড শো যেই বাঁশীগঞ্জ এলাকার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছিল সেই মাত্র সেখানের জনতা মোদী/যোগী শ্লোগান শুরু করে দেয়। যদিও কংগ্রেসের কার্যকর্তারা পাল্টে রাহুল রাহুল/প্রিয়াঙ্কা প্রিয়াঙ্কা শ্লোগান দেয়। জনতার মুড দেখে প্রিয়াঙ্কা নিজের রোড শো এর স্পীড বাড়িয়ে দেয় এবং মানুষের কাছে ভোট না চেয়েই এগিয়ে চলে যান। আজানের শব্দ শুনে প্রিয়াঙ্কা নিজের ভাষণও বন্ধ করেছিলেন।

প্রিয়ঙ্কা বঢরা উরফ প্রিয়াঙ্কা গান্ধী(Priyanka Gandhi) মির্জাপুর থেকে আরো একবার রাহুল গান্ধীর প্রতিশ্রুতিকে জনতার সামনে রাখেন। প্রিয়াঙ্কা বলেন আমরা গরিব জনতাকে বছরে ৭২,০০০ টাকা দেব যা দেশের গরিবী দূর করবে। এই ৭২,০০০ টাকা মেয়েদের একাউন্টে যাবে বলে দাবি করেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। উনি বলেন এটা বিজেপির মতো কোনো মিথ্যা পতিশ্রুতি নয় এটা রাহুল গান্ধীর প্রতিশ্রুতি। প্রসঙ্গত জানিয়ে দি, মধ্যপ্রদেশের কংগ্রেস পার্টি ক্ষমতায় আসার আগে জানিয়েছিল যে তারা ৭ দিনের মাথায় কৃষকদের ঋণ মাফ করে দেবে। তবে বর্তমান পরিস্থিতি এমন যে মধ্যেপ্রদেশের কংগ্রেসি মুখ্যমন্ত্রী নিজেই স্বীকার করেছেন যে এত তাড়াতাড়ি ঋণ মাফ করে দেওয়া সম্ভব নয়।