Press "Enter" to skip to content

পুলওয়ামা জঙ্গি হামলার পর, রোহিঙ্গা প্রেমী প্রিয়াঙ্কা নিজের আসল রুপ দেখিয়ে দিলো

রোহিঙ্গাপ্রেমী বলে পরিচিত দেশি গার্ল প্রিয়াঙ্কা এখন পাকিস্তানের হয়ে তদারকি শুরু করল। গতকাল পুলোয়ামায় জঙ্গি হামলায় ৪৪ জন জওয়ান শহীদ হন, আহত ও অনেক। তবে অফিসিয়ালি এখনো ডেটা পাওয়া যায়নি। আর এই ঘটনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন দেশি থেকে বিদেশী হওয়া ভারতীয় অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপরা।

উনি এই ঘটনায় শহীদ সেনার পরিবারের প্রতি সমবেদনা ব্যাক্ত করেন। এবং শহীদদের আত্মার শান্তি কামনা করেন। তবে এই ঘটনার পরিপেক্ষিতে উনি ভারতের থেকে পাকিস্তানের উপর কোন হামলা যাতে না করা হয় সেরকম আবেদন করেন।

আর সেই আবেদন করেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রল হন দেশি … আই মিন বিদেশী গার্ল। উনি এখন না বেশ কয়েক বছর ধরেই বিদেশেই থাকছেন। এখন তো দেশের কোন সিনেমায় অভিনয় ও করেন না। এখন উনি হলিউড অ্যাকট্রেস। তাই ওনাকে বিদেশী গার্ল বলাই ভালো।

তবে ওনার মানবিক এই আবেদনের পিছনে অনেক কারণও আছে। উনি এখন বিশ্ব মানবতাবাদী সংস্থার ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডার। তাই ওনার মানবিক চরিত্র সবার সামনে তুলে ধরাই ওনার কাজ। আর উনি ওই সংস্থার হয়ে রোহিঙ্গা শিবিরে শিবিরে ভ্রমণ করেছেন।

কিন্তু দুঃখের কথা হল, কয়েকমাস আগে উনি যখন বিয়ে করেছিলেন। তখন কোন রোহিঙ্গাকে আমন্ত্রণ পাঠাননি। যদিও সেটা ওনার সম্পূর্ণ ব্যাক্তিগত ব্যাপার। আর উনি বিয়ে করার সময় ও চরম ট্রল হন। কারণ উনি পালা করে প্রতি বছর দীপাবলিতে শব্দ বাজির বিরুদ্ধে কথা বলেন।

উনি শব্দ বাজির বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলে সারমেয় দের কষ্টের কথা তুলে ধরেন। কিন্তু ওনার নিজের বিয়েতেই কয়েক কোটি টাকার শব্দ বাজি পোড়ান হয়, তখন উনি একফোঁটাও প্রতিবাদ করেন নি। আর এই জন্যই উনি ট্রল ও হন। যাই হোক এতদিন ছিল রোহিঙ্গা প্রেম, সারমেয় প্রেম তারপর নীক জোনাস এর প্রতি প্রেম। আর এখন নতুন প্রেম জন্মাল সন্ত্রাসবাদের জন্মদাতা পাকিস্তানের প্রতি প্রেম।

10 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.