Press "Enter" to skip to content

রুশে শরিয়া আদালতের দাবি উঠার পর কট্টরপন্থীদের উদেশ্য রাষ্ট্রপতি পুতিন যা বলেছিলেন…

কোনো দেশ কখনো নিজে নিজে মহান হয়ে যায় না, দেশ তখনই মহান হয় যখন সেই দেশ শক্তিশালী নেতা পায় আর শক্তিশালী নেতা তখনই হয় যখন দেশের জনগণ শক্তিশালী হয়ে একতা ও রাষ্ট্রবাদী হয়ে কাজ করে। তবে যে সমাজ পেট্রল আর পেঁয়াজের দামের ভিত্তিতে ভোট প্রদান করে সেই সমাজে শক্তিশালী নেতা থাকা খুবই কঠিন। আজ কাল আমাদের দেশের কিছু কট্টরপন্থী শরিয়া আদালতের দাবি তুলেছে এমনকি নতুন দেশ তৈরীর দাবি তুলেছে।

এই কট্টরপন্থী মানুষের সংখ্যা যতই বাড়বে ততই এদের দাবি প্রবল হবে। তবে এই ধরণের কট্টরপন্থী যে শুধু ভারতে আছে ইটা নয়, এইরকম কট্টর মানসিকতার লোক রুশেও আছে কিন্তু সেখানে বহুসংখক সমাজ তাদের সাথে অত্যন্ত শক্তভাবে ব্যাবহার করে। রুশেও একবার শরিয়া আদলতের দাবি উঠেছিল কিন্তু সেইসময় রুশের রাষ্ট্রপতি এমন বক্তব্য রেখেছিলেন যার পর থেকে আর কারোর মুখে শরিয়া আদালতের কথা শোনা যায় না।

পুতিন বলেছিলেন,
যাদের শরিয়া চাই তারা রুশ থেকে বেরিয়ে যান কারণ এখানে শরিয়া পাবেন না।
আমরা অল্পসংখ্যকদের জন্য আলাদা করে কোনো সুবিধা দেবো না।
রুশে কট্টরপন্থী অল্পসংখকদের কোনো প্রয়োজন নেই বরং অল্প সংখ্যকদের রুশকে প্রয়োজন।
এখনে কোনো শরিয়া বা বাড়তি সুবিধা দেওয়া হবে না তাতে তারা যতই চিৎকার করুক বা ভেদভাব করার জন্য সরকারকে দোষারোপ করুক।