Press "Enter" to skip to content

ব্রেকিং খবর: পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হলো রাহুল গান্ধীকে! দিল্লিতে CBI অফিসের সামনে উৎপাত করায় পুলিশ হেফাজতে রাহুল গান্ধী।

প্রথমত আপনাদের জানিয়ে দি, ও কিছু মিডিয়া এই খবর ছড়াচ্ছে যে দপ্তরের সামনে পদর্শন করার জন্য নেতা ও অন্যান্য কিছু নেতাকে গেপ্তার করা হয়েছে।কিন্তু আসলে রাহুল গান্ধী ও বাকি নেতাদের গেপ্তার করা হয়নি বরং তাদের পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। নেতারা ও মিডিয় পুলিশ হেফাজত এবং গ্রেপ্তারের মধ্যে কোনো পার্থক্য না বুঝেই রব তুলেছে। গেপ্তার তখন করা হয় যখন কারোর বিরুদ্ধে কেস দায়ের করা হয়। রাহুল গান্ধী ও অন্য ের নেতাদের বিরুদ্ধে কেস দেওয়া হয়নি বরং দেশের রাজধানীতে অরাজকতা ও উৎপাত করার জন্য পুলিশি হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।

রাহুল গান্ধীর নেতৃত্বে কংগ্রেসের নেতা ও সমর্থকরা CBI মামলা নিয়ে দপ্তরের সামনে বিনা অনুমতিতে উৎপাত ও তান্ডব করছিল। রাহুল গান্ধী ও কংগ্রেসিদের উৎপাতে সাধারণ মানুষ সমস্যায় পড়ছিল, এম্বুলেন্স ও যানবাহন ট্রাফিক পড়ে গেছিলো। তাই পুলিশ বাধ্য হয়ে রাহুল গান্ধীকে হেফাজতে নেয়। সামনে ২০১৯ এর নির্বাচন তাই রাহুল গান্ধী নিজের জনপ্রিয়তা বাড়ানোর জন্য রাস্তায় নেমে উৎপাত ও অরাজকতা তৈরি করেছিল।

রাহুল গান্ধীর নেতৃত্বে তার সমর্থকরা সাধারণ মানুষের সমস্যা সৃষ্টি করেছিল তাই পুলিশ তাদেকে হেফাজতে নেয়। যদিও সোশ্যাল মিডিয়ায় দেশবাসী দাবি করেছে রাস্তায় বিনা অনুমতিতে, না জানিয়ে পদর্শন করা জন্য পুলিশ কংগ্রেসের নেতাদের উপর লাঠিচার্জ করুক। তবে পুলিশ জানিয়েছে তারা গেপ্তার করছে না এটা শুধুমাত্র হেফাজতে নেওয়া হয়েছে । তবে আমাদের দেশের মিডিয়া ও কংগ্রেস রাজনীতি করে এটাকে গেপ্তার বলে দাবি করছে।

CBI এর মুখ্যালয়ের সামনে ব্যাস্ত সড়কে এইভাবে বিনা অনুমতিতে উৎপাত করার জন্য জনগণ কংগ্রেস নেতাদের শাস্তির দাবি তুলেছে। কিছুজন রাহুল গান্ধী ও তার সাথীদের বেধড়ক মার দেওয়ার দাবি তুলেছে।