পাকিস্থানের সাথে গোপনে বৈঠক করতে চলেছেন রাহুল গান্ধী! মোদীকে হারানোর জন্য জঙ্গিদের সাথে আলোচনায় রাহুল।

আতঙ্কবাদী ও পাকিস্থানের সাথে কংগ্রেসের সম্পর্ক বহু দশকের। কখনো মনিশঙ্কর আইয়ার তো কখনো নবজোত সিং সিদ্ধু, পাকিস্থানে গিয়ে রাজনৈতিক দালালি করে এসেছেন। এমনকি মোদীকে হারানোর জন্য একাধিকবার পাকিস্থানের থেকে সাহায্যও চেয়েছিল কংগ্রেস। পাকিস্থানের সাথে এমন কংগ্রেসের এমন সম্পর্ককে আরো একবার মজবুত করতে বেরিয়ে পড়েছেন রাহুল গান্ধী। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার রাতে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী হটাৎ করেই বেরিয়ে পড়েন দুবাইয়ের উদ্দেশ্য। দাবি অনুযায়ী, দুবাইতে পাকিস্থানের প্রতিনিধিদের সাথে বৈঠকে বসবেন রাহুল গান্ধী। জানিয়ে দি, রাহুল গান্ধী বিরোধী পার্টির একজন নেতা তাই উনি ভারতের হয়ে যে কোনো বার্তা রাখতে দুবাই যাননি এটাও নিশ্চিত।

এমনকি রাহুল গান্ধী কেন ও কি উদ্দেশ্যে দুবাই গিয়েছেন তার বেশকিছু প্রমান পাওয়া গেছে। এমনিতে রাহুল গান্ধী মাঝে মধ্যেই বিদেশ যাত্রা করেন ছুটি কাটানোর জন্য। সেই মতো কংগ্রেস সমর্থকরা দাবি করেছে যে রাহুল গান্ধী ছুটি কাটতেই দুবাই গিয়েছেন। বিদেশ যাত্রা করতে গিয়ে ভারতের দুর্নাম করার দিক থেকে রাহুল গান্ধী অনেক আগেই দক্ষতা অর্জন করেছেন তবে এবার রাহুল গান্ধী বিদেশ ভ্ৰমন করতে নয় বরং মোদী সরকারের বিরূদ্ধে ষড়যন্ত্র করতেই বেরিয়েছেন।

দুবাইতে গিয়ে রাহুল গান্ধী শিখ সম্প্রদায়ের সাথে বৈঠকের ডাক দেন বৈঠকে শিখ সম্প্রদায়ের মানুষ কম এবং কট্টরপন্থী খালিস্থান সমর্থক নেতা বেশি উপস্থিত ছিল। খালিস্থানি জঙ্গিদের সাথে রাহুল গান্ধীর বৈঠক নিয়ে মিডিয়া নিশ্চুপ থাকলেও ভারত সরকার সমস্থ দিকে কড়া দৃষ্টি রেখেছে।

আসলে সামনে নির্বাচন তার আগে সরকারকে সমস্যায় ফেলে দেশের মধ্যে অনিয়ন্ত্রণকারী অবস্থা তৈরি করে জনগণের মন জয় করার চেষ্টা করবে বিরোধিরা। যে কংগ্রেস দেশে রাজ করার জন্য দেশ ভাগ করতে পারে তারা ক্ষমতা দখলের জন্য যেকোনো স্তর অবধি যেতে পারে বলেই ধারণা মোদী সরকারের। তাই সমস্থ দিক বিবেচনা করে দেশের বিরোধী পার্টি, কট্টরপন্থী, বামপন্থী ও বিদেশী শক্তিগুলির উপর কড়া নজর রেখেছে মোদী সরকার।

Leave a Reply

you're currently offline

Open

Close