Press "Enter" to skip to content

মুসলিম বুদ্ধিজীবীদের কাছে এক বড়ো প্রতিজ্ঞা করলেন রাহুল গান্ধী।

হিন্দুদের বোকা বানিয়ে এবং মুসলিম সম্প্রদায়কে তোষণ করেই বছরের পর বছর ভারতে শাসন করেছে কংগ্রেস। কিন্তু মোদী সরকার আসার পর থেকে কংগ্রেসের হিন্দু বিরোধী নীতিগুলির পর্দাফাঁস করেছে যার ফলস্বরূপ দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠরা কংগ্রেসকে হিন্দুবিদ্বেষী ও দেশ বিরোধী পার্টি বলে ঘোষণা করে দিয়েছে। তাই এখন দেশের হিন্দুদের খুশি করতে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী(খ্রিষ্টান) নিজেকে পৈতেধারী হিন্দু বলে দাবি করে মন্দিরে মন্দিরে ভ্রমণ করতে শুরু করেছে।

বিশেষ করে গুজরাট ও কর্ণাটক এর প্রচারের আগে প্রায় প্রতিদিন মন্দিরে ভ্রমনে ছিলেন রাহুল গান্ধী। আর এই নিয়েই রাহুল গান্ধীর উপর রেগে আছেন মুসলিম বুদ্ধিজীবি মহল। আপনাদের জানিয়ে রাখি গুজরাট ও কর্ণাটক ভোটের আগে প্রচুর পরিমানে মন্দির ভ্রমন করেই আশানরূপ হিন্দুভোট পাননি রাহুল গান্ধী তাই হিন্দু মন্দির যাওয়া বন্ধ করে আবার মুসলিম বুদ্ধিজীবী ও কংগ্রেসের পুরানো ভোটব্যাঙ্ক দের সাথে বৈঠক করেন এদিন। শোনা যাচ্ছে, মুসলিম বুদ্ধিজীবীরা বৈঠকে মন্দির যাওয়া নিয়ে রাহুল গান্ধীর উপর ক্ষোপ উগরে দেন। জানা গেছে মুসলিম বুদ্ধিজীবীরা জানান যে কংগ্রেস পার্টি তাদের আদর্শ ও মুসলিমদের প্রতি দায়বদ্ধতা থেকে সরে আসছে।এর পর রাহুল গান্ধী মুসলিম বুদ্ধিজীবীদের কাছে এই ব্যাপারে ক্ষমা চান বলেও জানা গেছে। শুধু এই নয় রাহুল গান্ধী মুসলিম বুদ্ধিজীবী মহলের কাছে একটা প্রতিজ্ঞাও করেন।

রাহুল গান্ধী তাদের জানান যে আর এরকমটা কখনোই হবে না। অর্থাৎ তিনি মসজিদ ছেড়ে মন্দিরে মন্দিরে ঘুরবেন না সেই ব্যাপারে নিশ্চিত তাদের কাছে শপদ নেন যে এমনটা আর কখনোই হবে না। আপনাদের জানিয়ে রাখি রাহুল গান্ধীর দল আরো একবার মুসলিম তোষণ করে ভোট নেওয়ার জন্য মাঠে নেমে পড়েছে। সম্প্রতি দেশের প্রত্যেক জেলায় শরিয়া আদালত গঠন করার জন্যেও সমর্থন জুগিয়েছে তারা।